Thursday, February 29, 2024
বাড়িরাজ্যবামেদের ইশতেহার বিভ্রান্ত মূলক : বিজেপি

বামেদের ইশতেহার বিভ্রান্ত মূলক : বিজেপি

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ৮ ফেব্রুয়ারি : বামফ্রন্টের ইশতেহার নিয়ে মাথা ঘামালেন বিজেপি। বুধবার প্রদেশ বিজেপি নির্বাচনী কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে বামফ্রন্টের ইশতেহারের তীব্র ভাষায় আক্রমণ করলেন কর্মচারী নেতা সন্তোষ সাহা। তিনি জানান, রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল বামফ্রন্ট এবং কংগ্রেস কর্মচারীদের বিভিন্ন ভাবে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে। রাজ্যের একটা বড় অংশ রয়েছে সরকারী কর্মচারী। তাদের দীর্ঘ দিনের একটা ইতিহাস রয়েছে।

 কেন্দ্রীয় বেতনক্রম থেকে তাদের বঞ্চিত রাখা হয়েছিল। এই লড়াইয়ের প্রেক্ষাপটে তদানিন্তন মুখ্যমন্ত্রী সুখময় সেনগুপ্তের সরকারের পতন ঘটে। একটাই দাবী ছিল কেন্দ্রীয় হারে বেতন ভাতা প্রদানের। ১৯৭৮ সালে নৃপেন চক্রবর্তীর নেতৃত্বে সরকার গঠিত হওয়ার পর ৩৫ বছর এই রাজ্যে ক্ষমতায় ছিল বামফ্রন্ট। এই বাম শাসনে প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেনি। দিনের পর দিন কর্মচারীরা বঞ্চনার সিকার হয়েছে। ২০১৮ সালে বিজেপি সরকার প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে কর্মচারীদের কেন্দ্রীয় হারে বেতন ভাতা প্রদান করেছে। কর্মচারীরা সাবলীল ভাবে দুহাত ভরে এই সরকারকে সমর্থন করছে। বর্তমানে বাম কংগ্রেসের মধ্যে জোট হয়েছে। তারা নির্বাচনী ইস্তেহার প্রকাশ করেছে। এই ইস্তেহারের মাধ্যমে সরকারী কর্মচারীদের বিভ্রান্ত করছে বলে জানান তিনি। ২০০৪ সালে নতুন পেনশন স্কীম আনা হয়। কংগ্রেস তখন সরকারে। আর তাঁকে সমর্থন করেছিল বামেরা। করলে নতুন পেনশন স্কীম চালু রয়েছে। অথচ রাজ্যে সেই সিপিএম মিথ্যাচার করছে বলে জানান কর্মচারী নেতা সন্তোষ সাহা। বিজেপি সরকারের আমলে রাজ্যে কর্মরত এবং অবসর প্রাপ্ত ২ লক্ষ ৬০ হাজার কর্মচারী সুবিধা পাচ্ছে বলে জানান তিনি। বিভ্রান্ত করার প্রয়াসে পা না দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি। সাংবাদিক সম্মেলনে ছিলেন বিজেপি প্রবক্তা অস্মিতা বনিক, শ্রমিক নেতা সমর রায় উপস্থিত ছিলেন ।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য