Wednesday, February 8, 2023
বাড়িরাজ্যমানব পাচারে করিডর ত্রিপুরা, উদ্বেগ প্রশাসনের সেমিনার

মানব পাচারে করিডর ত্রিপুরা, উদ্বেগ প্রশাসনের সেমিনার

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৭ ডিসেম্বর :  মানব পাচার রুখতে ব্যর্থ রাজ্য প্রশাসন। ত্রিপুরা রাজ্য মানব পাচারে করিডোর হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। মঙ্গলবার এন্টি হিউম্যান ট্রাফিকিং -এর এক সেমিনারে বিষয়টি আকার ইঙ্গিতে স্পষ্ট করে দিলেন মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন বর্ণালী গোস্বামী। সেমিনারে এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মেয়র দীপক মজুমদার সহ আরক্ষা দপ্তরের আধিকারিকেরা। মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন বর্ণালী গোস্বামী জানান, রাজ্যে মানব পাচার ধীরে ধীরে বেড়ে চলেছে। আর মানব পাচার বিশেষ করে শিশু এবং মহিলাদের ক্ষেত্রে হচ্ছে। বিশেষ করে ত্রিপুরা রাজ্য এই মানব পাচারে করিডোর হয়ে কাজ হচ্ছে।

এখন পর্যন্ত চারটি মানব পাচারের ঘটনা অফিসিয়াল ভাবে কাগজে কলমে রয়েছে। এছাড়া নন অফিসিয়াল যেসব মানব পাচারের ঘটনা রয়েছে সেগুলোর মধ্যে অধিকাংশই উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। কিন্তু নন অফিসিয়াল কয়টি এ ধরনের ঘটনা সংঘটিত হয়েছে তার কোন তথ্য প্রমাণ তুলে ধরতে পারেনি মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন। এই মানব পাচার শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি। আজকে পশ্চিম জেলার পক্ষ থেকে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হওয়ার পর সারা রাজ্যে ধারাবাহিকভাবে করা হবে সেমিনার। তারপর যে রিপোর্টটি বের হয়ে আসবে তা কেন্দ্রীয়ভাবে পাঠানো হবে বলেও জানান। কিন্তু রাজ্য মানব পাচার যে প্রশাসন রুখতে পাচ্ছে না, সেটাও একটা বড় ব্যর্থতা বলে মনে করছে সাধারণ মানুষ। কারণ কাগজে-কলমে একাধিক ব্যবস্থাপনার কথা উল্লেখ থাকলেও ময়দানে নেমে কোন আধিকারিকের কাজ করার ইচ্ছে শক্তি লক্ষ করে না সাধারণ মানুষ। সবটাই কলাপাতা। ফলে দিন দিন মানব পাচারের ঘটনা ক্রমশ বেড়ে চলেছে। বিশেষ করে রেল পথ এবং সীমান্তবর্তী এলাকায় কঠোর নজরদারির অভাব রয়েছে। যার ফলে সুরক্ষিত নয় শিশু এবং নারীরা। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হলো নন অফিসিয়াল ভাবে যাদের উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে তাদের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করে রাঘববোয়ালদের কতটা জালে তুলতে পেরেছে সে নিয়েও কোন ধরনের তথ্য সাংবাদিকদের সামনে আনতে পারিনি সেদিন সংশ্লিষ্ট দপ্তর।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য