Friday, March 1, 2024
বাড়িরাজ্যউন্নত ভারত গড়তে যুবক যুবতীদের অংশীদার হতে হবে : উপরাষ্ট্রপতি

উন্নত ভারত গড়তে যুবক যুবতীদের অংশীদার হতে হবে : উপরাষ্ট্রপতি

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৯ নভেম্বর : মঙ্গলবার প্রথমবার রাজ্যে আসেন উপরাষ্ট্রপতি জগদীপ  ধনখড়। এদিন তিনি রাজ্যে এসে এম বি বি মহাবিদ্যালয়ের উদ্যোগে রবীন্দ্র হলে আয়োজিত রাজ্যের শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়নে নতুন দিগন্তের সূচনা শীর্ষক সেমিনারের অংশ নেন।

 অনুষ্ঠানে উপরাষ্ট্রপতি ছাড়াও ছিলেন সহধর্মিণী ডাক্তর সুদেশ ধনখড়, মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহা, মন্ত্রী রতন লাল নাথ সহ অন্যান্যরা। রাজ্যের শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়নে উপর তৈরি একটি ভিডিও উপস্থাপন করা হয়। ত্রিপুরার বাঁশের তৈরি সামগ্রী উপহার হিসাবে উপরাষ্ট্রপতি জগদীপ ধনখড়ের হাতে তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহা। উপরাষ্ট্রপতির স্ত্রী ডাক্তর সুদেশ ধনখড়ের হাত উপহার তুলে দেন মন্ত্রী রতন লাল নাথ।

সেমিনারের বক্তব্য রাখতে গিয়ে উপরাষ্ট্রপতি জগদীপ ধনখড় বলেন বিশ্বের সবচাইতে বড় গনতান্ত্রিক রাষ্ট্র ভারত। আর ভারতের বিদেশ নীতি তৈরি করা হয়েছে ভারত এবং ভারতীয়দের স্বার্থে। বর্তমানে গোটা বিশ্ব ভারতকে সম্মান করে চলে। এটা আগে দেখা যেত না। প্রত্যেক যুবক যুবতীর ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করা হয়েছে। উন্নত ভারত গড়তে যুবক যুবতীদের অংশীদার হতে হবে। সংবিধানে মৌলিক অধিকারের কথা রয়েছে। কিন্তু এর সঙ্গে নতুন করে যুক্ত হয়েছে মৌলিক কর্তব্য। সকলের উদ্দেশ্যে আহ্বান জানান মৌলিক কর্তব্যগুলি পূরণ করতে এগিয়ে আসার জন্য। 

তিনি মহাবিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদেরকে শিক্ষার দিক দিয়ে এগিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। পাশাপাশি তিনি আরো বলেন শিক্ষাই একমাত্র সম্পদ যা প্রত্যেকটি মানুষকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবে।  

ত্রিপুরায় সংস্কৃতি স্পন্দিত হয়। লুক ইষ্ট পলিসি উত্তর পূর্বাঞ্চলের রাজ্য গুলিতে প্রতিফলিত হতে শুরু করেছে। সরকারের নীতি এখন নতুন দিশা পেয়েছে। সেই দিশায় নিজেদের চিন্তা ভাবনা ধাবিত করার আহ্বান জানান  উপরাষ্ট্রপতি। ২০২২ সালে উন্নতির ক্ষেত্রে গোটা বিশ্বে শীর্ষে রয়েছে ভারত। অন্যকোন দেশ এই সাফল্য অর্জন করতে পারেনি বলে জানান তিনি।

রাজ্যে একটি সুস্থির পরিবেশ রয়েছে। আর তা গোটা রাজ্যের মানুষ অনুভব করতে পারছে। সামগ্রীক উন্নতির পথে রয়েছে ত্রিপুরা। জাতি জনজাতিদের আর্থ সামাজিক উন্নতির লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে। শিক্ষা ও জ্ঞান ছাড়া এগুনো সম্ভব নয়। প্রধানমন্ত্রীর এই দিশাতে সরকার কাজ করছে। সমস্ত বিষয়ে এগিয়ে যাচ্ছে ত্রিপুরা। হীরা মডেলের কাজ চলছে ত্রিপুরায় বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। এদিন উপরাষ্ট্রপতি এম বি বি মহাবিদ্যালয়ে ত্রিপুরার ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য শীর্ষক একটি প্রদর্শনীর সূচনা করেন। এম বি বি মহাবিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানে শেষে রাজভবনের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন তিনি। রাজভবনে গার্ড অফ অনার প্রদান করে বিশেষ সম্মান প্রদান করা হয়। তারপর রাজভবনে মধ্যাহ্ন ভোজন করেন। বিকালে বায়ুসেনার বিশেষ বিমানে কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা হন তিনি এবং তাঁর সহধর্মিনী।

পূর্ববর্তী নিবন্ধ
পরবর্তী নিবন্ধ
সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য