Monday, December 5, 2022
বাড়িরাজ্যনাবালিকার বিয়ে রুখতে সক্ষম হলো প্রশাসন

নাবালিকার বিয়ে রুখতে সক্ষম হলো প্রশাসন

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২১ নভেম্বর :  নাবালিকার বিয়ে বন্ধ করে দিল প্রশাসন। জানা যায়, সোমবার গোপন সূত্রের ভিত্তিতে ত্রিপুরা শিশু সুরক্ষা কমিশন, সোনামুড়ার ডিসিএম এবং মেলাঘর থানার পুলিশ তেলকাজলা ৬ নং ওয়ার্ডে বিয়ে বাড়িতে হানা দেয়। অভিযানের ছিলেন রাজ্য শিশু সুরক্ষা ও অধিকার কমিশনের চেয়ারপার্সন হিমানী দেববর্মা, কমিশনের সদস্য মনীষা সাহা, সিপাহীজলার শিশু সুরক্ষা কমিশনের কর্মীরা, সোনামুড়া মহকুমা শাসক অফিসের ডেপুটি কালেক্টর ম্যাজিস্ট্রেট অনামিকা দেববর্মা সহ মেলাঘর থানার পুলিশ ও টিএসআর বাহিনী।

এদিন নাবালিকা মেয়েটির বাড়িতে যখন দুপুর একটায় প্রশাসনিক আধিকারিকরা হানা দেয় তখন অবশ্য বর এবং বর যাত্রীরা আসার বাকি ছিল, কিন্তু বর না আসলেও বিয়ের সমস্ত আয়োজন প্রস্তুত রাখা হয়েছিল। বিয়ে বাড়ীতে বেশ কয়েক ধাপ খাওয়া-দাওয়াও সেরে নেয় পরিজনেরা, এমন সময় প্রশাসনিক আধিকারিকরা বিয়ে বাড়িতে হানা দেয়। যদিও তখন পুলিশ আসতে দেখে নাবালিকা মেয়েকে অন্য এক বাড়িতে নিয়ে লুকিয়ে রাখা হয়।

 শিশু সুরক্ষা কমিশনের কর্মীদের নির্দেশে নাবালিকা মেয়েকে সামনে নিয়ে আসতে বাধ্য হয়। আর তখন শিশুর সুরক্ষা কমিশন এবং চাইল্ড লাইনের কর্মীরা নাবালিকা মেয়েটিকে জিজ্ঞাসাবাদ চালায়। অবশেষে শিশু সুরক্ষা কমিশনের কর্মীরা এই নাবালিকা মেয়েটির বিয়ে বন্ধ করে দেয়। নাবালিকা মেয়েটির পরিবারের পক্ষ থেকে প্রশাসনিক আধিকারিকদেরকে লিখিত আকারে জানানো হয় মেয়েকে ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেওয়া হবে না। শিশু সুরক্ষা কমিশনের চেয়ারপারসন জানান মেয়েটির ১৮ বছর হওয়ার আরো আট মাস বাকি। ৮ মাস পরে মেয়েকে বিয়ে দিতে পারবে। আরো অভিযোগ, বিয়ে বাড়ির ডেকোরেটরের কর্ণধার জাহাঙ্গীর হোসেন পুলিশের সাথে দুর্ব্যবহার করেছে। এ বিষয়ে অভিযুক্ত ডেকোরেটরে কর্ণধারের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলে জানা যায়।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য