Monday, December 5, 2022
বাড়িরাজ্যক্যান্সার রোগ রুখতে মিশন মুডে জনসচেতনতার প্রয়োজন : মুখ্যমন্ত্রী

ক্যান্সার রোগ রুখতে মিশন মুডে জনসচেতনতার প্রয়োজন : মুখ্যমন্ত্রী

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ৩০ সেপ্টেম্বর :  ক্যান্সার রোগ সম্পর্কে মানুষকে আরো অধিক সচেতন হতে হবে। এর জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে মিশন মুডে কাজ করতে হবে। তাহলে এই রোগ কমানো সম্ভব হবে। শুক্রবার রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবনে মুখ্যমন্ত্রী ক্যান্সার সংক্রমক বেধি সনাক্তকরণ ও লোকসচেতনতা অভিযানের শুভ সূচনা করে এ কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ মানিক সাহা। তিনি বলেন, সরকারি মূল উদ্দেশ্য হলো সুশাসন।

 আর সুশাসনের অর্থ হলো যারা সরকারি সুবিধা পাওয়ার যোগ্য তারা যাতে কোন ভাবেই বঞ্চিত না হয়। আর সেই লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে চলেছে বর্তমান সরকার। তিনি আরো বলেন, রাজ্য মন্ত্রীসভার বৈঠকে বুধবার সিদ্ধান্ত হয় টেট উত্তীর্ণ যোগ্য প্রার্থীদের মধ্য থেকে তিন হাজার একশ আট জন শিক্ষক নিয়োগ করার। তার মধ্যে ৭৫৭ টি পদ হচ্ছে আন্ডার গ্রাজুয়েট শিক্ষকদের জন্য। ২৩৫১ টি পদ হচ্ছে আপার প্রাইমারি লেভেলের গ্রাজুয়েট টিচারের পদ। প্রমোশনের জটিলতা কাটিয়ে রাজ্যের কর্মচারীদের প্রোমোশনের দ্বার খুলে দিয়েছেন। যার ফল স্বরূপ দীর্ঘ দিন ধরে প্রমোশন থেকে বঞ্চিত চিকিৎসকরা প্রমোশনের সুফল পাওয়া শুরু করেছেন। যেমন গত দুই দিন আগেই এক সাথে ২৭৭ জন রাজ্যের চিকিৎসক প্রমোশন পেয়েছেন। যা পূর্বে কল্পনাও করা যেত না বলে সামাজিক মাধ্যমে এ বিষয়ে তুলে ধরে অভিমত ব্যক্ত করেন মুখ্যমন্ত্রী।

মুখগহ্বর , স্তন এবং জরায়ুর ক্যান্সারের পাশাপাশি বিভিন্ন সংক্রমণ রোগে আক্রান্ত মানুষের মৃত্যুর হার কমাতে এবং এ বিষয়ে সচেতন করতে “মুখ্যমন্ত্রী ক্যান্সার ও অসংক্রমণ বিধি সনাক্তকরণ ও লোকসচেতনতা অভিযান” আগামী ১৫ অক্টোবর থেকে শুরু হবে। চলবে আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। রাজ্যজুড়ে চার মাস ব্যাপী এই অভিযান করা হবে। বিগত ২০২১ সালে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছে ১৭৩ জন, জরায়ু ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছে ১৪৮ জন, মুখগহ্বর ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছে ৩৩ জন, অন্যান্য ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছে ২৫৬৪ জন, সর্বমোট ক্যান্সার আক্রান্ত হয়েছে এই বছর ২৯১৮ জন। ন্যাশনাল ফ্যামিলি হেলথ সার্ভে অনুযায়ী ১৫ বছর বা তার বেশি বয়সী ২১ শতাংশ মহিলা এবং ২৪ শতাংশ পুরুষ উচ্চ রক্তচাপে ভুগছে, ৩৯ শতাংশ মহিলা এবং ১৫ বছর বা তার ঊর্ধ্বে ৪৯ শতাংশ পুরুষ প্রি হাইপারস্টেশনে ভুগছে। ১২ শতাংশ মহিলা এবং ১৫ বছর উদ্ধে ১৪ শতাংশ পুরুষ এই রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা প্রতি ডিসি লিটার ১৪০ মিলিগ্রামের বেশি পাওয়া গেছে। ন্যাশনাল ওরাল হেলথ প্রোগ্রাম কর্মসূচি সম্মিলিত প্রয়াসে রাজ্যের আটটি জেলায় অবস্থিত ৪০ টি ক্লিনিকে আওতাধীন আশা কর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে মানুষের মধ্যে ক্যান্সার প্রাথমিক লক্ষণ ও নিরাময়ের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে জনসচেতনতা করবে। এদিন আয়োজিত অনুষ্ঠানে এছাড়া উপস্থিত ছিলেন এন এইচ এম -এর অধিকর্তা শুভাশিস দাস, মুখ্য সচিব জে কে সিনহা, স্বাস্থ্য সচিব ডক্টর দেবাশীষ বসু, রাধা দেববর্মা সহ অন্যান্য আধিকারিক। অনুষ্ঠানে যেদিন অনুষ্ঠানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ছাত্র ছাত্রীরা।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য