Tuesday, July 16, 2024
বাড়িখেলাকিউই স্পিন আর অ্যালেনের ঝড়ে পাত্তা পেল না পাকিস্তান

কিউই স্পিন আর অ্যালেনের ঝড়ে পাত্তা পেল না পাকিস্তান

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, আগরতলা,১১ অক্টোবর: ক্রাইস্টচার্চে ত্রিদেশীয় সিরিজের ম্যাচে পাকিস্তানকে ৯ উইকেটে উড়িয়ে দিল নিউ জিল্যান্ড।দুই দলের প্রথম দেখায় পাকিস্তান জিতেছিল বেশ সহজেই। তিন ম্যাচ শেষে দুই দলেরই জয় এখন দুটি করে। দুই ম্যাচ খেলে বাংলাদেশের নেই কোনো জয়।হ্যাগলি ওভালে শনিবার পাকিস্তান ২০ ওভারে করতে পারে স্রেফ ১৩০ রান।নিউ জিল্যান্ডের তিন স্পিনার মাইকেল ব্রেসওয়েল, মিচেল স্যান্টনার ও ইশ সোধি মিলে ১২ ওভার বোলিং করে ৫ উইকেট নিয়েছেন মাত্র ৬১ রান দিয়ে।তাদের মধ্যে উজ্জ্বলতম ব্রেসওয়েল। ৪ ওভারে স্রেফ ১১ রান দিয়ে বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ানের উইকেট নিয়ে ম্যান অব দা ম্যাচ এই অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার। আগের ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষেও ম্যাচ সেরা হয়েছিলেন তিনি ১৪ রানে ২ উইকেট নিয়ে।রান তাড়ায় নিউ জিল্যান্ড জিতে যায় ২৩ বল বাকি রেখেই। ওপেনার ফিন অ্যালেন করেন ৪২ বলে ৬২। তার ইনিংসে চার ১টি হলেও ছক্কা ৬টি!

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা পাকিস্তানের শুরুটা খারাপ ছিল না। প্রথম দুই ওভারে চার বাউন্ডারিতে রান আসে ২০।ট্রেন্ট বোল্টকে এই ম্যাচে বিশ্রাম দেয় নিউ জিল্যান্ড। পেসার টিম সাউদির সঙ্গে নতুন বল হাতে নেন পিতৃত্বকালীন ছুটি কাটিয়ে ফেরা স্পিনার মিচেল স্যান্টনার। পাওয়ার প্লেতে আক্রমণে এসেই পাকিস্তানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন ব্রেসওয়েল। ১৭ বলে ১৬ করে ফেরেন রিজওয়ান।বাবর আজম ও শান মাসুদ এরপর সতর্ক ব্যাটিংয়ে চেষ্টা করেন জুটি গড়ার। অষ্টম ওভারে পঞ্চাশ ছাড়ায় পাকিস্তান। এরপরই স্যান্টনার ও ব্রেসওয়েলর ছোবল।শান মাসুদ ও শাদাব কানকে ফেরান স্যান্টনার। লম্বা সময় উইকেটে কাটানো বাবরকে দারুণ ডেলিভারিতে থামান ব্রেসওয়েল। ২৩ বল খেলে পাকিস্তান অধিনায়ক করতে পারেন ২১ রান।লেগ স্পিনার ইশ সোধি পরে জমে বসতে দেননি হায়দার আলিকে। ৭৭ রানে ৫ উইকেট হারানো পাকিস্তানকে টেনে নেওয়ার চেষ্টা করেন ইফতিখার আহমেদ ও আসিফ আলি। দুজনের কেউই অবশ্য রানের গতি বাড়াতে পারেননি।২৭ বলে ২৭ করে ইফতিখার আউট হন শেষের আগর ওভারে। আসিফ অপরাজিত থাকেন ২০ বলে ২৫ করে। ছক্কার জন্য পরিচিত ব্যাটসম্যান একবারও হাওয়ায় ভাসিয়ে বল পাঠাতে পারেননি বাউন্ডারিতে

|পাকিস্তানের গোটা ইনিংসেই ছিল না কোনো ছক্কা। নিউ জিল্যান্ডে পূর্ণাঙ্গ ইনিংসে এই প্রথম ছয় মারতে ব্যর্থ হলো কোনো দল। পুরো ২০ ওভার খেলে পাকিস্তান ছক্কা মারতে পারল না ৮ বছর পর।মন্থর উইকেটে ওই রান তাড়া করাও কঠিন হতে পারত নিউ জিল্যান্ডের জন্য। কিন্তু ফিন অ্যালেন ও ডেভন কনওয়ের জুটি উড়িয়ে দেয় নেই শঙ্কা। ১১৭ রানের উদ্বোধনী জুটিতে ম্যাচ ফয়সালা করে দেন দুজন।অ্যালেনের শুরুটা ছিল অস্বস্তিময়। তবে নিজের জোনে বল পেলেই তিনি উড়িয়েছেন বিশাল সব ছক্কায়। কনওয়ে এগিয়ে যান নিয়ন্ত্রিত ব্যাটিংয়ে।পাকিস্তানের স্পিনাররা চেষ্টা করেছেন রাশ টেনে ধরার। তবে যথেষ্ট পুঁজি তাদের ছিল না। পরের দিকে উইকেটও একটু সহজ হয়ে আসে।জয়ের কাছাকাছি গিয়ে স্টাম্পড  হন অ্যালেন। ৪৬ বলে ৪৯ করে কনওয়ে মাঠ ছাড়েন জয় নিয়ে।টুর্নামেন্টের পরের ম্যাচে বুধবার নিউ জিল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। বুধবার বাংলাদেশ সময় সকাল ৮টায় শুরু খেলা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

পাকিস্তান২০ ওভারে ১৩০/৭ (রিজওয়ান ১৬, বাবর ১৭, মাসুদ ১৪, শাদাব ৮, ইফতিখার ২৭, হায়দার ৮, আসিফ ২৫, নওয়াজ ০, ওয়াসিম ১*; সাউদি ৪-০-৩১-২, স্যান্টনার ৪-০-২৭-২, ব্রেসওয়েল ৪-০-১১-২, টিকনার ৩-০-২৭-০, সোধি ৪-০-২৩-১, ফিলিপস ১-০-১১-০)।

নিউ জিল্যান্ড: ১৬.১ ওভারে ১৩১/১ (অ্যালেন ৬২, কনওয়ে ৪৯*, উইলিয়ামসন ৯*; নাসিম ৩.১-০-১৮-০, দাহানি ২-০-২১-০, ওয়াসিম ২-০-১৯-০, শাদাব ৪-০-২৬-১, নওয়াজ ৪-০-২৮-০, ইফতিখার ১-০-১৪-০)।

ফল: নিউ জিল্যান্ড ৯ উইকেটে জয়ী।

ম্যান অব দা ম্যাচ: মাইকেল ব্রেসওয়েল।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য