Friday, May 31, 2024
বাড়িবিশ্ব সংবাদসুইডেনে নারাজ, এক শর্তে ন্যাটোতে ফিনল্যান্ডকে নিতে রাজি এরদোয়ান

সুইডেনে নারাজ, এক শর্তে ন্যাটোতে ফিনল্যান্ডকে নিতে রাজি এরদোয়ান

স্যন্দন ডিজিটেল ডেস্ক,৩০ জানুয়ারি: তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান গতকাল রোববার প্রথমবারের মতো বলেছেন, প্রতিবেশী সুইডেনকে বাদ দিলে ফিনল্যান্ডকে ন্যাটোতে মেনে নিতে পারে তাঁর দেশ। খবর এএফপির।তরুণ ভোটারদের সঙ্গে টিভিতে এক আলোচনায় এরদোয়ান এমন মন্তব্য করেন। দুই দেশের সঙ্গে ন্যাটোতে যোগদানের আলোচনা কয়েক দিন আগে প্রত্যাখ্যান করেছে আঙ্কারা।লিথুনিয়ার রাজধানী ভিলনিয়াসে আগামী জুলাইতে অনুষ্ঠেয় সম্মেলনে ৩২ দেশে সম্প্রসারণের প্রত্যাশা করেছিল ন্যাটো। তবে তুরস্ক ফিনল্যান্ড ও সুইডেনকে নিতে রাজি না হওয়ায় ন্যাটোর সেই সিদ্ধান্ত হুমকির মুখে পড়ে।ফিনল্যান্ড ও সুইডেন কয়েক দশকের সামরিক নিরপেক্ষতা প্রত্যাহার করে মার্কিন নেতৃত্বাধীন প্রতিরক্ষা জোটে যোগ দিতে আবেদন করেছে। ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলার প্রতিক্রিয়ায় দেশ দুটি এমন পদক্ষেপ নিয়েছে।তবে পার্লামেন্টে ভোটাভুটিতে ফিনল্যান্ড ও সুইডেনকে ন্যাটোতে অন্তর্ভুক্ত করতে অনুমোদন দেয়নি তুরস্ক ও হাঙ্গেরি। হাঙ্গেরির আইনসভা আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে দুটি দেশকে এ ব্যাপারে অনুমোদন দেবে বলে আশা করা হচ্ছে।

তবে আগামী ১৪ মে অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচন উপলক্ষে এরদোয়ান নিজের অবস্থান শক্তিশালী করার চেষ্টা করছেন। এ জন্য তিনি রক্ষণশীল ও জাতীয়তাবাদীদের জোরালো সমর্থন পেতে চেষ্টা করছেন।সুইডেনের প্রতি বিরূপ মনোভাব রয়েছে আঙ্কারার। কুর্দি বিদ্রোহী হিসেবে সন্দেহভাজন বেশ কয়েকজনকে হস্তান্তর করতে রাজি হয়নি সুইডেন। ২০১৬ সালে ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থান প্রচেষ্টার কারণেও ক্ষুব্ধ আঙ্কারা।আগে দুটি দেশের ব্যাপারে আপত্তি তুললেও এরদোয়ান গতকাল অবশ্য কিছুটা নমনীয় হয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘যদি প্রয়োজন হয় আমরা ফিনল্যান্ডের ন্যাটোতে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করতে পারি।’ তিনি সন্দেহভাজন ওই ব্যক্তিদের আঙ্কারার কাছে হস্তান্তর করতে আবারও সুইডেনের প্রতি দাবি জানান।এরদোয়ান বলেন, যদি সুইডেন ন্যাটোতে যোগ দিতে চায়, তাহলে এসব সন্ত্রাসীদের হস্তান্তর করতে হবে। ফিনল্যান্ডের চেয়ে সুইডেনে কুর্দি সম্প্রদায়ের সংখ্যা বেশি। আঙ্কারার সঙ্গে কুর্দিরা ছাড়াও আরও বিভিন্ন ইস্যুতে বিরোধ রয়েছে সুইডেনের।
ফিনল্যান্ড ও সুইডেন দুই দেশই কয়েক মাস ধরে আলোচনার মাধ্যমে এরদোয়ানের নীরবতা ভাঙার চেষ্টা করছে।আঙ্কারার দাবি মেনে সন্ত্রাসবিরোধী আইন কঠোর করতে সংবিধানে সংশোধনী আনার বিষয়টি অনুমোদন করেছে সুইডেন। সুইডেন ও ফিনল্যান্ড দুই দেশই তুরস্কে সেনাসরঞ্জাম বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে। ২০১৯ সালে সিরিয়ায় সেনা অভিযানের পর এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।তবে এ মাসের শুরুতে স্টকহোমে তুর্কি দূতাবাসের বাইরে এক বিক্ষোভকারীর পবিত্র কোরআন পোড়ানোর ঘটনা অনুমোদন করায় তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে আঙ্কারা।সুইডেনের কর্মকর্তারা এই বিক্ষোভের প্রতিবাদ জানিয়েছেন। তবে দেশে মুক্ত বাক্‌স্বাধীনতা চর্চার বিষয়টিও বলেছেন।স্টকহোম সিটি আদালতের বাইরে এরদোয়ানের কুশপুত্তলিকা ঝোলানো কুর্দি সমর্থক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে অভিযোগ না আনতে সুইডেনের কৌঁসুলির সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ হয়েছে আঙ্কারা।ফিনল্যান্ডের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পেকা হাভিস্তো গত মঙ্গলবার বলেন, সুইডেনের সঙ্গেই ন্যাটোতে যোগ দেওয়া তাঁদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য