Saturday, July 2, 2022
বাড়িরাজ্য৫ বছরের জন্য ইলেকট্রিক ভ্যাহিক্যাল পলিসি লাগু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রীসভা :...

৫ বছরের জন্য ইলেকট্রিক ভ্যাহিক্যাল পলিসি লাগু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রীসভা : সুশান্ত

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৪ মে  : মন্ত্রী সভার বৈঠকে একাধিক সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়। মহাকরণে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে অবগত করেন মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী। তিনি জানান পরিবহণ দপ্তরের অধীনে ১৯ টি এম ভি আই-র পোষ্ট ছিল। এর মধ্যে ১৩ জন এম ভি আই কর্মরত অবস্থায় আছে। বাকী ৬ টি পদ বিলুপ্ত হয়ে যায়। মন্ত্রী সভা সেই ৬ টি পদ সৃষ্টি করে নতুন করে নিয়োগের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। টি পি এস সি-র মাধ্যমে এই ৬ পদে নিয়োগ করা হবে।

পরিবহণ দপ্তরের কাজের পরিধি বৃদ্ধির জন্যই এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। জল, সড়ক ও রেল পথের সম্প্রসারণের কারণে কাজের পরিধি বেড়েছে পরিবহণ দপ্তরের। ২০২১-২২ সালে পরিবহন দপ্তরের মাধ্যমে রাজস্ব আদায় হয়েছে ১০০ কোটি ৫৮ লক্ষ টাকা। সমস্ত দিক বিবেচনা করে মন্ত্রীসভা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানান তিনি। পরিবহণ দপ্তরের জন্য আগামী ৫ বছরের জন্য ইলেকট্রিক ভ্যাহিক্যাল পলিসি লাগু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রীসভা। এই পলিসির মাধ্যমে বর্তমানে রাজ্যে থাকা ৬০ হাজার যান গুলির ১০ শতাংশকে ইলেকট্রিকে রূপান্তর করা হবে। ইতিমধ্যে দেশের ১৪ টি রাজ্যে এই পলিসি কার্যকর করা হয়েছে। উত্তর পূর্বাঞ্চলের আসাম ও মেঘালয়ে এই পলিসি কার্যকর রয়েছে। এবার থেকে ত্রিপুরাতে এই পলিসি কার্যকর হবে। তিনি জানান রাজ্যে বর্তমানে দ্বিচক্র যানের সংখ্যা ৪২ হাজার, ত্রিচক্র যানের সংখ্যা ১০ হাজার, চার চক্র যানের সংখ্যা ৭৫০০ এবং বাসের সংখ্যা ৫০০। মোট ৬০ হাজার যানের ১০ শতাংশকে ইলেকট্রিকে রূপান্তর করা হবে। এর ফলে শব্দ, বায়ু দূষণ রোধ করা সম্ভব হবে।

একই সঙ্গে সাশ্রয় করা যাবে জ্বালানি। মুখ্যমন্ত্রী চা শ্রমিক কল্যাণ প্রকল্পের ঘোষণা করা হয়েছে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে চা শ্রমিকদের ২ থেকে ৩ গণ্ডা খাস ভূমি প্রদান করার মন্ত্রীসভায় সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। এতে রাজ্যের মোট ৭২৩০ চা শ্রমিকের পরিবার উপকৃত হবে। বিনামূল্যে তাদের এ্যালটম্যান্ট দেওয়া হবে বলে জানান মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী। কোন প্রিমিয়াম প্রদান করতে হবে না বলেও জানান তিনি। বছরে দুবার রাজ্যের কৃষকদের অর্থনৈতিক বুনিয়াদকে শক্তিশালী করার জন্য ২০১৮ সাল থেকে ধান ক্রয়  করছে সরকার। এখনো পর্যন্ত ১৯২ কোটি ৫২ লক্ষ টাকার ধান ক্রয় করা হয়েছে কৃষকদের কাছ থেকে। নতুন করে মন্ত্রীসভা সিদ্ধান্ত নিয়েছে খারিফ মরশুমে ২০ হাজার মেট্রিক টন ধান ক্রয় করার বিষয়ে। এতে ব্যয় হবে ৪৫ কোটি টাকা। জুন মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে ৩২ টি সেন্টারে ১৯ টাকা ৪০ পয়সা দরে এই ধান করা হবে বলে জানান মন্ত্রী শুশান্ত চৌধুরী।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য