Monday, March 4, 2024
বাড়িরাজ্যব্রুবাগ্রা যা বলে তা করে দেখায় : প্রদ্যোত

ব্রুবাগ্রা যা বলে তা করে দেখায় : প্রদ্যোত

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ৫ ফেব্রুয়ারি : নির্বাচনের পর যারা বলেছিল এ.কে মিশ্রা কে জানে না! এমন কি তিপ্রাসাদের অনেকে এ নিয়ে মজা করেছিল! কিন্তু পরবর্তী সময় এ.কে মিশ্র রাজ্যে এসেছেন। ব্রুবাগ্রা যা বলে তা করে দেখায়। যে সাংবিধানিক দাবির কথা জনজাতি অংশের মানুষের স্বার্থে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন সেটা পূরণ করে যাবে বলে দলের কর্মীদের আশ্বস্ত করলেন তিপ্রা মথা দলের সুপ্রিমো প্রদ্যোত কিশোর দেববর্মণ। সোমবার মালঞ্চ নিবাসে তিপ্রা মথা দলের তৃতীয় বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রেখে তিনি আরো বলেন, মিজোরাম থেকে আসা ব্রু -দের ত্রিপুরা থেকে বিতাড়িত করার জন্য বহু চেষ্টা করা হয়েছিল। বলা হতো মিজোরাম যাও

। কিন্তু সরকারের সাথে প্রদ্যোত কিশোর দেববর্মণ যখন কথা বলেছে তখন ব্রু রিয়াং শরণার্থীদের ত্রিপুরায় পুনর্বাসন মিলেছে। যেভাবে এদিন গল্প বানালেন প্রদ্যোত। আরো বলেন, তিনি কংগ্রেস ছেড়ে তিনি বিজেপিতে যেতে পারতেন। কিন্তু বিজেপি -তে গেলে জনজাতিদের সাথে অবিচার হবে। আর এটা তিনি অনুভব করেছেন। তাই তিপ্রা মথা দল তৈরি করে জনজাতিদের জন্য বিধানসভায় কথা বলার সুযোগ তৈরি করেছেন। বর্তমানে ১৩ জন বিধায়ক জনজাতিদের জন্য তিপ্রা মথার হয়ে কথা বলেন। কারণ আজকেও জনজাতিদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য কিছুই মিলছে না। চিকিৎসার অভাবে জনজাতিদের মৃত্যু হচ্ছে। রাজ্যের বাইরেও যেতে হচ্ছে। তাই ন্যায় পেতে জনজাতিদের থানসা হতে হবে। যতক্ষণ জনজাতিদের মধ্যে এর উৎসাহ থাকবে ততক্ষণ পর্যন্ত লক্ষ্য থেকে কেউ হারাতে পারবে না। তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন অযোধ্যায় রামের মন্দির তৈরি করে রামকে আদর দিয়েছে, এখন জনজাতিদেরও আদর দেওয়ার জন্য দাবির করা হচ্ছে। প্রদ্যুৎ কিশোর দেববর্মণ ককবরক ভাষার পরীক্ষায় রোমান হরফে লেখার যে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে সে বিষয়ে তিনি অভিযোগ তুলে বলেন ত্রিপুরা মধ্যশিক্ষা পর্ষদ সভাপতি ড. ধনঞ্জয় গণচৌধুরি বলেছেন, বাংলা হরফে পরীক্ষার উত্তর না লিখলে তিনি মামলা করবেন পরিক্ষার দায়িত্বে থাকা আধিকারিকদের বিরুদ্ধে। এর পরিপ্রেক্ষিতে প্রদ্যোত বলেন, তিনি কে এই কথা বলার? ব্রুবাগ্রা অসুস্থ, দুর্বল হলেও ব্রুবাগ্রা ব্রুবাগ্রাই! হুশিয়ারি দিয়ে প্রদ্যুৎ কিশোর দেববর্মণ বলেন, যখন পাকিস্তান পূর্ব পাকিস্তানকে বলেছিল তোমরা বাংলাতে লিখতে পারবে না, উর্দুতে লিখতে হবে।

তখন ভাষা আন্দোলন হয়ে পাকিস্তান ভেঙ্গে বাংলাদেশ হয়েছে। তাই রাজনীতি বিষয় নয় এটা। অধিকারের লড়াই। ছেলেমেয়েরা পরীক্ষায় পাশ না করলে তারা ভবিষ্যতে চাকরি পাবে না। এর জন্য পর্ষদ সভাপতি যাতে রোমান হরফে পরীক্ষা দেওয়ার জন্য ব্যবস্থা নেন বলে জানান প্রদ্যোত। আয়োজিত অনুষ্ঠানে এদিন এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দলের সভাপতি বিজয় রাঙ্খল, বিরোধী দলনেতা অনিমেষ দেববর্মা সহ অন্যান্য নেতৃত্ব। সকলে এদিন সকালে মহারাজা বীর বিক্রম কিশোর মানিক্যের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য