Tuesday, July 16, 2024
বাড়িরাজ্যজলের কর জমা দিতে এসে চরম গাফিলতি অভিযোগ সাধারণ মানুষের

জলের কর জমা দিতে এসে চরম গাফিলতি অভিযোগ সাধারণ মানুষের

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১১ এপ্রিল : এই বারোটায় অফিস আসি দুটোয় টিফিন। তিনটেয় যদি দেখি সিগন্যাল গ্রীন। চটিটা গলিয়ে পায়ে নিপাট নির্দ্বিধায়। চেয়ারটা কোনোমতে ছাড়ি। কোন কথা না বাড়িয়ে ধীরে ধীরে পা বাড়িয়ে চারটেয় চলে আসি বাড়ি। আমি সরকারি কর্মচারী। আমি, আমি সরকারি কর্মচারী। প্রখ্যাত সংগীত শিল্পী নচিকেতা চক্রবর্তীর এই গানটিকে ছাপিয়ে গেছে বাস্তবে ত্রিপুরার একাংশ সরকারি কর্মচারী।

 তাই এবার অভিযোগ চলছে দুর্ভোগ পোহানো মানুষ। রবীন্দ্র ভবন সংলগ্ন জল বোর্ডের অফিসে জলের কর জমা দিতে গিয়ে হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। সকাল থেকে লাইনে দাড়িয়ে থাকলেও নির্ধারিত সময়ে দেখা মিলছে না দপ্তরের কর্মীদের। যে করের টাকা জমা দিতে এসে চূড়ান্ত ভাবে হয়রানি হচ্ছেন প্রবীন থেকে নবীন সকলকেই। জানা যায় কাউন্টার খোলার সময় সকাল ১০ টা ৩০ মিনিট উল্লেখ থাকলেও কর্মীরা আসেন মর্জি মতো। যে কারনে লম্বা লাইন পরিলক্ষিত হয় কাউন্টার গুলির সামনে। তার উপর মিলছে দুরব্যহার। এই অবস্থায় ভোক্তারা হয়রানির শিকার হয়ে করের টাকা জমা দিচ্ছেন। বিষয়টি দেখার মত কেউ নেই। মঙ্গলবার ফের একবার হয়রানির শিকার হতে হয় ভোক্তাদের। প্রকাশ্যে তারা ক্ষোভ জানান। অন্যদিকে এক অফিস কর্মী শাক দিয়ে মাছ ঢাকার চেষ্টা করেন। এক আধদিন দেরি হতেই পারে বলে সাফাই গাইলেন। প্রশ্ন উঠছে পরিষেবা প্রদানের নামে ভোক্তা হয়রানী কেন ঘটবে তা নিয়ে। ভোক্তারা চান সমস্যা নিরসনে উর্ধতন কর্তৃপক্ষ কড়া ব্যবস্থা গ্রহণ করুক। তবে দপ্তরের মন্ত্রীকেও সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে বলে মনে করছে অনেকে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য