Friday, March 1, 2024
বাড়িরাজ্যভুল চিকিৎসার অভিযোগ তুলে নার্সিংহোমে উত্তেজনা রোগীর পরিজনদের

ভুল চিকিৎসার অভিযোগ তুলে নার্সিংহোমে উত্তেজনা রোগীর পরিজনদের

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১৮ মার্চ :  আগরতলা শহরের অলিগলিতে ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে ওঠা নার্সিংহোম নিয়ে আবারো গুরুতর অভিযোগ উঠল শনিবার। আগরতলা শহরের সুনামধন্য আশা নার্সিংহোমের চিকিৎসক সুব্রত ভৌমিক পুর পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শংকর দেব মারধর করার হুমকি দেন বলে অভিযোগ। ঘটনার বিবরণে জানা যায় রাকেশ সাহা নামে এক রোগীকে চিকিৎসক সুব্রত ভৌমিক দুদিন আগে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর পেটে পাথর রয়েছে বলে জানান।

সার্জারি জন্য শনিবার হাসপাতালে ভর্তি হতে বলেন। সেই মোতাবেক শনিবার সকালে রোগী যখন নার্সিংহোমে এসে ভর্তি হয় তখন চিকিৎসক বলেন তার পেটে পাথর নেই। ওষুধ খাওয়ার পর প্রস্রাব সাথে পাথর বের হয়ে গেছে। কিন্তু পরবর্তী সময় ৪৫ হাজার টাকায় একটি বিল ধরিয়ে দেন চিকিৎসক সুব্রত ভৌমিক। তখন রোগী এবং রোগীর পরিবারের লোকেরা যখন এসে দ্বিমত পোষণ করে তখন আবার চিকিৎসক বলেন পেটে একটি পাথর রয়েছে। সার্জারি করতে হবে। তাই আবার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য বলেন। পরবর্তী সময়ে রোগী এবং চিকিৎসকের মধ্যে শুরু হয় বাক-বিতন্ডা। পরিস্থিতি উত্তেজিত হয়ে উঠার পর রোগী পুর পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শংকর দেবকে নার্সিংহোমে নিয়ে আসেন। ভাইস চেয়ারম্যান যখন চিকিৎসকের সাথে কথা বলতে যায় তখন মারধোর করতে আসে বলে অভিযোগ রোগী এবং রোগীর সাথে থাকার লোকজনদের। এদিকে চিকিৎসক জানান, রোগী রাকেশ সাহার তিনটি পাথর ধরা পড়েছিল। রোগীকে বলা হয়েছিল তিনি সার্জারি করবেন নাকি ঔষধের মাধ্যমে বের হয় কিনা অপেক্ষা করবেন। রোগী সার্জারি করতে চাইলে শনিবার রোগীকে দিনক্ষণ বেঁধে দেওয়া হয়। শনিবার হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর যখন সার্জারি করতে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল তখন একসাথে পাথর ধরা পড়ছিল না। সেই সময় রোগীকে বলা হয়েছিল আবার এক্সরে করার জন্য। তখন এক্সে করার পর দেখা যায় একটি পাথর রয়েছে। তখন ওয়ার্ডে মধ্যে স্বাস্থ্যকর্মীদের অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে রোগী। কিন্তু কত টাকা চাওয়া হয়েছিল সে বিষয়টা জানেন না বলেই জানান চিকিৎসক। পরবর্তী সময়ে পরিস্থিতি কোনক্রমে নিয়ন্ত্রণে আসে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য