Wednesday, April 24, 2024
বাড়িরাজ্যপ্রচারে মহাগুরু, বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন মনোনীত প্রার্থীরা

প্রচারে মহাগুরু, বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন মনোনীত প্রার্থীরা

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ৪ ফেব্রুয়ারি : আসন্ন বিধানসভার নির্বাচনের বৈতরণী পার হতে ময়দান চষে বেড়াচ্ছেন সব রাজনৈতিক দলের প্রত্যেক মনোনীত প্রার্থী। রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে এবার কারোর মূল স্লোগান হলো গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার এবং আইনের শাসন পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা, ব্যতিক্রম অন্য দলের স্লোগান ত্রিপুরার উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখা। শনিবার কোথাও দেখা যায় তারকা প্রচার। তবে ব্যতিক্রম নয় নির্দলের প্রার্থীও। দলের স্লোগানকে হাতিয়ার করে প্রত্যেক রাজনৈতিক প্রার্থীরাই দুয়ারে দুয়ারে পৌঁছে যাচ্ছে জনগণের আশীর্বাদ নিতে।

তবে এদিন তারকা প্রচারে ছিলেন মিঠুন চক্রবর্তী। মহাগুরু এদিন ৬ আগরতলা বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি মনোনীত প্রার্থী পাপিয়া দত্তের হয়ে ইন্দ্রনগর বাজার এলাকা থেকে একটি রোড শো -তে অংশ নেন। হুড খোলা গাড়িতে মনোনীত প্রার্থীকে নিয়ে মহাগুরু এদিন অলিগলির পথ পরিক্রমা করেন। অর্ধ শতাধিক কর্মী নিয়ে রোড শো হয়। এদিকে ৮ নং টাউন বড়দোয়ালি বিধানসভা কেন্দ্রের কংগ্রেস মনোনীত প্রার্থী আশীষ কুমার সাহা এলাকায় ডোর টু ডোর প্রচারে বের হন। প্রচারে কংগ্রেস কর্মী সমর্থকদের পাশাপাশি বামফ্রন্টের প্রচুর কর্মী সমর্থক এদিন আশীষ বাবুর সাথে ছিলেন। এই এলাকায় একাধিকবারের বিধায়ক আশীষ কুমার সাহা গত উপনির্বাচনে বিজেপি মনোনীত প্রার্থী ডাক্তার মানিক সাহার কাছে পরাজিত হয়েছিলেন। কিন্তু এলাকায় ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে আশীষ বাবুর। কারণ এই বিধানসভা কেন্দ্র অবাম ভোটারদের গত কয়েকটি বিধানসভা নির্বাচনে তিনি হাতের মুঠোয় রেখেছেন।

 কিন্তু উপনির্বাচনে জনগণের রায় তিনি পরাজিত হয়েছেন। আসন্ন ত্রয়োদশ বিধানসভা নির্বাচনে তিনি কংগ্রেসের পক্ষ থেকে পুনরায় মনোনীত প্রার্থী হয়েছেন। এবং আসন্ন নির্বাচনে সিপিআইএমের পক্ষ থেকে সমর্থন করা হবে বলে বামফ্রন্ট এবার ৮ নং টাউন বড়দোয়ালি বিধানসভা কেন্দ্রে প্রার্থী দেয় নি। বামফ্রন্ট এবং কংগ্রেস জোট মুখ্যমন্ত্রী ডাক্তার মানিক সাহাকে পরাজিত করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে জনগণের আশীর্বাদ নিয়ে আশীষ সাহা দাবি করেন জয় নিয়ে নিশ্চিত। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে ৬০ আসনের মধ্যে যদি বিজেপি একটি আসনেও জয়ী হতে পারে তাহলে সেটা হবে অগণতান্ত্রিক মনোভাব এবং রাজনৈতিক ভুল। ৭ রামনগর বিধানসভা কেন্দ্রের নির্দল মনোনীত প্রার্থী পুরুষোত্তম রায় বর্মন জয়নগর মহাবীর ক্লাব সংলগ্ন এলাকায় বাড়ি বাড়ি প্রচারে যান। মনোনীত প্রার্থীর বাইরে তার মানবাধিকার কর্মী হিসেবে বিশেষ পরিচিতি রয়েছে। সংসদীয় রাজনীতিতে তিনি প্রথমবার লড়াই করতে নেমেছেন। সমর্থনে রয়েছে বামফ্রন্ট। মনোনীত প্রার্থী সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে জানান, মানুষ পরিবর্তন চাইছে। তিনি এদিন জানার মূল লক্ষ্য হলো গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করা। কারণ গণতান্ত্রিক অধিকার না থাকলে মানুষ কাজ খাদ্যের কথা বলতে পারে না। গত পাঁচ বছর ধরে রাজ্যের মানুষের প্রতিবাদী কন্ঠ রোধ করা হয়েছে। এবং গণতন্ত্রকে হত্যা করা হয়েছে। মানুষ তার জীবন জীবিকার সমস্যার কথা বলতে পারে না। তাই বিজেপির মানুষের সামনে দাঁড়ানোর ক্ষমতা নেই। তাই তারা হুমকি এবং ভয়-ভীতি আশ্রয় নিচ্ছে। তাই মানুষ প্রস্তুতি নিচ্ছে।এখন দেখার বিষয় জনগণ আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি কি রায় দেয়।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য