Friday, March 1, 2024
বাড়িরাজ্যদুয়ারে দুয়ারে গিয়ে ভোট চাইছেন বিজেপি, বামফ্রন্ট এবং তৃণমূল

দুয়ারে দুয়ারে গিয়ে ভোট চাইছেন বিজেপি, বামফ্রন্ট এবং তৃণমূল

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ৩১ জানুয়ারি : ভোট আসতে জনদরদী নেতারা ভোট প্রচারে দুয়ারে দুয়ারে গিয়ে ভোট চাইছেন। পাঁচ বছর জনগণের খোঁজখবর রাখুক আর না রাখুক তাতে কোন কিছু যায় আসে না। কিন্তু নির্বাচন আসতে ময়দানে সরব হন নেতারা। এদিন ভোট প্রচারে দেখা গেছে বিজেপি, ফরওয়ার্ড ব্লক থেকে শুরু করে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের। দীর্ঘ পাঁচ বছর তাদের সাথে জনগণের দেখা করতে অনুমতি চাইতে হয়েছে।

নির্বাচন আসতেই তারা বৈতরণী পার হতে জনগণের কাছে যাচ্ছে। বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার বুলি উগড়ে দিচ্ছেন। ভোট প্রচারে অন্যান্য রাজনৈতিক দলের নেতাদের মত মুখ্যমন্ত্রীও বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট প্রচার করেছেন। মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী জয়নগরের এলাকায় বাড়ি বাড়ি ভোট প্রচারে যান। মুখ্যমন্ত্রী সংবাদ মাধ্যমকে এদিন জানান, মানুষ দেখছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির অবস্থা। তাই মানুষ সুষ্ঠু পরিবেশে মধ্য দিয়ে রাজ্যে উন্নয়ন বিকাশ চাইছে। তাই আগামী দিন বিজেপির পক্ষে সুনামিও হতে পারে জানান মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী এদিন আরো জানান আগামী দিনে ভোট প্রচারে রাজ্যে আসবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, ভারতীয় জনতা পার্টির রাষ্ট্রীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা সহ অন্যান্যরা। এদিকে এদিন ১০,৩২৩ -এর চাকরিচ্যুত ললিপপ নিয়ে বাড়ি বাড়ি যেতে দেখা গেছে ১৪ বাধারঘাট বিধানসভা কেন্দ্রের ফরওয়ার্ড ব্লকের মনোনীত প্রার্থী পার্থপ্রতিম সরকারকে।

 তিনি জানান সরকারের প্রতিষ্ঠিত হয়ে বিজেপি প্রথমে বর্তমান সরকার ১০,৩২৩ – এর উপর অত্যাচার নামিয়ে আনে। এই পরিবার গুলি বর্তমানে অসহনীয় যন্ত্রণার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। তাই ১০,৩২৩ সিদ্ধান্ত নিয়েছে ত্রিপুরা রাজ্য থেকে বিজেপি সরকারকে পরাস্ত করে বিকল্প সরকার প্রতিষ্ঠিত করবে। এবং বামফ্রন্ট প্রতিষ্ঠিত হয়ে তাদের জন্য ব্যবস্থা করবে বলে আশ্বস্ত করেন তিনি।  ভোট প্রচারে নেমেছেন মন্ত্রী রামপ্রসাদ পাল। তিনি সূর্যমনি নগর বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি মনোনীত   প্রার্থী। এদিন তিনি ৩৮ নং বুথে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট প্রচার করেন। এবং তিনি যেদিন বাড়ি বাড়ি গিয়ে দাবি জানান যাতে আগামী পাঁচ বছর মানুষের সেবা করতে সুযোগ দেওয়া হয়।  এদিকে ভোট প্রচারে দেখা গেছে বনমালীপুর বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপি মনোনীত প্রার্থী রাজীব ভট্টাচার্যীকে। তিনিও বাড়ি বাড়ি ভোট প্রচারে গিয়ে ব্যাপক  সাড়া পেয়েছে বলে দাবি করেন। মানুষের মধ্যে ব্যাপক স্বতঃস্ফূর্ততা রয়েছে।  জয় নিয়ে আশাবাদী ঘাসফুল শিবিরও। বনমালী পুর বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস মনোনীত প্রার্থী  শান্তনু সাহা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট প্রচার করছেন। জনগণের কাছে চাইছেন ভোট। মানুষকে বলছেন যদি সরকারে প্রতিষ্ঠিত হয় তৃণমূল কংগ্রেস তাহলে ত্রিপুরায় পশ্চিমবঙ্গের মতো বিভিন্ন সুবিধা প্রদান করা হবে। তবে আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি জনগণ প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দলের ভূমিকা উপর ভিত্তি করে রায় প্রদান করবে। আর সেই চূড়ান্ত রায় ঘোষনা হবে ২ মার্চ।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য