Wednesday, August 17, 2022
বাড়িরাজ্যত্রিপুরা ভাগের দাবি নিয়ে তিপ্রা মথা ও আইপিএফটি- র দিল্লি অভিযান ২৭শে,...

ত্রিপুরা ভাগের দাবি নিয়ে তিপ্রা মথা ও আইপিএফটি- র দিল্লি অভিযান ২৭শে, জন্তর মন্তরে গণঅবস্থান ২৯শে

আগরতলা, ১৩ নভেম্বর (হি.স.) : রাজ্যভাগের দাবি নিয়ে দিল্লি অভিযানে যাচ্ছে তিপ্রা মথা ও ত্রিপুরায় শাসক জোট শরিক আইপিএফটি। আগামী ২৭ নভেম্বর ট্রেনে চড়ে তাঁরা দিল্লির উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেবেন। তাঁরা ২৯ নভেম্বর থেকে দিল্লির যন্তর মন্তরে গণ অবস্থানে বসবেন। আজ সন্ধ্যায় সাংবাদিক সম্মেলনে ওই ঘোষণা দিয়ে তিপ্রা মথার চেয়ারম্যান তথা ত্রিপুরার রাজ পরিবারের সদস্য প্রদ্যুত কিশোর দেব্বর্মন বার্তা দেন, দলমত নির্বিশেষে দিল্লি অভিযানে সামিল হোন।

ত্রিপুরায় শাসক জোট আইপিএফটি চাইছে রাজ্যভাগ। প্রদ্যুতের তিপ্রা মথা গ্রেটার তিপ্রাল্যান্ড গঠনের ডাক দিয়েছে। তাতে, এডিসি এলাকার পাশাপাশি সমতল ত্রিপুরাকেও তিনি যুক্ত করতে চাইছেন। তিপ্রাল্যান্ড এবং গ্রেটার তিপ্রাল্যান্ডের দাবি নিয়ে এখন আইপিএফটি এবং তিপ্রা মথা এক মঞ্চে সামিল হয়েছে। ফলে, তিপ্রা মথার দিল্লি অভিযানে আইপিএফটি-ও যোগ দিচ্ছে। সম্প্রতি, আইপিএফটি সুপ্রিমো তথা রাজস্ব মন্ত্রী এন সি দেব্বর্মা এবং জনজাতি কল্যাণ মন্ত্রী মেবার কুমার জমাতিয়া দৃঢ়তার সাথে জানিয়েছেন, মন্ত্রিত্বের প্রতি লোভ নেই তাঁদের। তিপ্রাল্যান্ডের দাবি আদায় করা তাঁদের মুখ্য উদ্দেশ্য।

আজ প্রদ্যুত বলেন, মাসাধিককাল ধরে দিল্লি অভিযান নিয়ে আলোচনা চলছে। এখন আমরা স্থির করেছি, আগামী ২৭ নভেম্বর দিল্লির উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেব। তাঁর কথায়, আইপিএফটি আমাদের সাথে দিল্লি অভিযানে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। কারণ, একই ইস্যুতে এক সুরে আওয়াজ উঠলে তবেই দিল্লির নেতাদের কানে তা পৌছাবে। তাঁর মতে, অসাংবিধানিক দাবি নিয়ে আমরা দিল্লিতে গণ অবস্থানে বসতে যাচ্ছি না। ভারতীয় সংবিধানের ২ এবং ৩ নম্বর ধারা মোতাবেক পৃথক রাজ্যের ন্যায্য দাবি নিয়ে আমরা দিল্লি যাচ্ছি।

তাঁর দাবি, আমরা সংবিধানের ১২৫তম সংশোধন, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বাতিল, জাতীয় নাগরিক পঞ্জি চালু এবং তিপ্রাল্যান্ড ও গ্রেটার তিপ্রাল্যান্ড হোক চাইছি। তাঁর কথায়, ইতিমধ্যে ট্রেন বুক করা হয়ে গেছে। তিপ্রা মথার সদস্যদের জন্য ১৩টি বগি এবং আইপিএফটি-র আবেদনে তাঁদের জন্য ২টি বগি বুক করা হয়েছে। ইতিমধ্যে ভাড়াও মিটিয়ে দেওয়া হয়েছে।

তিনি জানান, আগামী ২৭ নভেম্বর আমরা দিল্লি অভিযানে যাচ্ছি। কারণ, ২৯ নভেম্বর থেকে সংসদের উভয় কক্ষের অধিবেশন শুরু হচ্ছে। ফলে, উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সমস্ত সাংসদগণ ওই সময় দিল্লিতে উপস্থিত থাকবেন। তাঁরা প্রয়োজনবোধে আমাদের আন্দোলনে সামিল হতে পারবেন। তাঁর কথায়, ২৯ নভেম্বর থেকে তিনদিন দিল্লির জন্তর মন্তরে গণ অবস্থান হবে তিপ্রাল্যান্ড এবং গ্রেটার তিপ্রাল্যান্ডের দাবি আদায়ে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য