Saturday, June 15, 2024
বাড়িখেলাতিনজন বাদে সব খেলোয়াড়কে বিক্রির পরিকল্পনা ইউনাইটেডের

তিনজন বাদে সব খেলোয়াড়কে বিক্রির পরিকল্পনা ইউনাইটেডের

স্যন্দন ডিজিটেল ডেস্ক, ৩০ এপ্রিল: পুরোনো ব্যর্থতা ভুলে নতুন মৌসুমে নতুন করে শুরু কে না করতে চায়! ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডও চাচ্ছে। আর সেটি করতে গিয়ে একেবারে খোলনলচে পাল্টানোর ব্যবস্থা করতে যাচ্ছে ইংলিশ ফুটবলের সবচেয়ে সফল দলটি। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানাচ্ছে, তিনজন বাদে বাকি সব খেলোয়াড়কেই নাকি বিক্রি করে দেওয়ার পরিকল্পনা করছেন ইউনাইটেডের নতুন মালিক স্যার জিম র‍্যাটক্লিফ।ইউনাইটেডের হারিয়ে ফেলা গৌরব পুনরুদ্ধার করার জন্যই নাকি ‘পুরোনো আবর্জনা’ ঝেড়ে ফেলে নতুন মুখ দিয়ে দল গড়ার এই উদ্যোগ। র‍্যাটক্লিফরা সেটি চাইতেই পারেন। গত কয়েকটা মৌসুমে কী বাজেই না কেটেছে ২০ বারের লিগ চ্যাম্পিয়নদের।

এই মুহূর্তে ৩৪ ম্যাচে ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ষষ্ঠ স্থানে এরিক টেন হাগের দল। চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা করে নেওয়ার স্বপ্ন এরই মধ্যেই ধূলিসাৎ হয়েছে। ইউনাইটেডের লড়াই এখন ইউরোপা লিগে জায়গা পাওয়া নিয়েই। সেই ইউনাইটেড সবকিছু নতুন করে শুরু করতে চাইতেই পারে।বিবিসি জানিয়েছে, ইউনাইটেডের বিক্রির তালিকায় আছেন মার্কাস রাশফোর্ডও। যদিও ইউনাইটেডের কিছু সূত্র নাকি বলেছে আগের মৌসুমে ৩০ গোল করা ফরোয়ার্ডকে ‘বিক্রি হইবে’র তালিকার বাইরে রাখার চেষ্টা করে যাচ্ছেন তাঁরা।ইউনাইটেড অধিনায়ক ব্রুনো ফার্নান্দেজ, গোলরক্ষক আন্দ্রে ওনানা ও ফুলব্যাক দিয়োগো দালোতও নাকি আছেন বিক্রিযোগ্যদের তালিকায়। এই তিনজনকে চড়া দামে বিক্রির পরিকল্পনা ইউনাইটেডের।

রাশফোর্ড-ফার্নান্দেজদের ভাগ্যে কী আছে কে জানে! তবে আপাতত নিশ্চিন্তে থাকতে পারেন রাসমুস হইলুন্দ, কোবি মাইনু ও আলেহান্দ্রো গারনাচোরা। এই তিনজনকে ছাড়ার কোনো পরিকল্পনা নেই ইউনাইটেডের।তবে খেলোয়াড় বিক্রি করে ইউনাইটেড কত লাভ করতে পারবে, সেটি নিয়ে প্রশ্ন আছে। দেদার টাকা খরচ করে খেলোয়াড় কেনার অভ্যাস থাকলেও খেলোয়াড় বিক্রিতে ‘সুনাম’ নেই ইউনাইটেডের। অতীতে পানির দরে খেলোয়াড় বিক্রির ইতিহাস আছে দলটির। গত কয়েক বছরে সবচেয়ে বেশি দামে ইউনাইটেড যে খেলোয়াড়টিকে বিক্রি করেছে তাঁর নাম ড্যানিয়েল জেমস। ২০২১ সালে লিডসের কাছে আড়াই কোটি পাউন্ডে তাঁকে বিক্রি করে ইউনাইটেড।

যাইহোক, দলটির নতুন টেকনিক্যাল ডিরেক্টর জেসন উইলকক্সের সঙ্গে কোচ টেগ হাগের আলোচনার পরই উঠে আসে নতুন করে দল সাজানোর পরিকল্পনার কথা। পুরোনো খেলোয়াড় বিক্রি করে লাভ-ক্ষতির সমন্বয় করে আর্থিক সংগতি নীতির সঙ্গে মানিয়ে চলাটাও ইউনাইটেডের নতুন পরিকল্পনার অংশ।কয়েকজন খেলোয়াড়কে বিনা মূল্যেই ছেড়ে দিতে হবে ইউনাইটেডকে। তাঁদের মধ্যে আছেন চুক্তির মেয়াদ শেষ হতে যাওয়া স্ট্রাইকার অ্যান্থনি মার্শিয়াল ও ডিফেন্ডার রাফায়েল ভারান। ধারে আসা মরোক্কান মিডফিল্ডার সোফিয়ান আমরাবাতেরও ফিওরেন্তিনায় ফিরে যাওয়ার কথা।

মধ্যমাঠের দুই খেলোয়াড় ক্রিস্টিয়ান এরিকসেন ও কাসেমিরোর চুক্তির মেয়াদ এক ও দুই বছর বাকি থাকলেও তাঁদের ছেড়ে দেওয়ার পরিকল্পনা দলটির। ইউনাইটেড চলতি মৌসুমে শুরুতে বেঁচে দিয়ে চেয়েছিল হ্যারি ম্যাগুয়ার ও স্কট ম্যাকটমিনেকে। এবার ভালো করলেও এ দুজনকে আর ক্লাব ছাড়ায় বাধা দেবে না ইউনাইটেড। ডনি ফন ডি বিক, হ্যানিবাল মেইব্রি, ম্যাসন গ্রিনউড ও জ্যাডন সাঞ্চোকেও পাকাপাকিভাবে বিদায় দেওয়ার পরিকল্পনা দলটির।প্রশ্ন আছে দলটির কোচ এরিক টেন হাগকে রাখা না রাখা নিয়েও। তাঁর সাবেক ক্লাব আয়াক্স আমস্টারডাম নাকি ফেরাতে চাইছে টেন হাগকে। ইউনাইটেডও এখনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি দল পুনর্গঠনে টেন হাগের ওপর আস্থা রাখবে নাকি খুঁজবে নতুন কোচ।ক্লাবটির সূত্র নাকি বলছে, ২০২৫-২৬ মৌসুমটাকেই নিজেদের পুনর্জাগরণের জন্য পাখির চোখ করেছে ইউনাইটেড।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য