Tuesday, July 16, 2024
বাড়িখেলাফুটবলকে বিদায় বলে দিলেন ‘সুপারম্যান’

ফুটবলকে বিদায় বলে দিলেন ‘সুপারম্যান’

স্যন্দন ডিজিটেল ডেস্ক,৫ জুন: বেশি নয়, ৩ দিন আগেই বলেছিলেন, ‘এখনো অবসর নেওয়ার সময় হয়নি।’ নিজেকে দাবি করেছিলেন ‘সুপারম্যান’। তিন দিন পার না হতেই অবসরের ঘোষণা দিয়ে ফেললেন ইব্রাহিমোভিচ। কাল রাতে সান সিরোর দর্শকদের সামনে ইব্রা বলে দিলেন, ‘ফুটবল ছেড়ে যাচ্ছি, আপনাদের নয়।’ অক্টোবরে ৪২ পূর্ণ করতে যাওয়া ইব্রার অবসর নিয়ে কথা চলছে অনেক দিন ধরেই। এসি মিলানের সঙ্গে চুক্তি শেষ হয়ে যাচ্ছে এ মাসে। যে কারণে রোববার রাতে সিরি আ–য় মিলান-ভেরোনা ম্যাচটি ছিল ইতালিয়ান ক্লাবটির হয়ে তাঁর শেষ ম্যাচ। চোটের কারণে মাঠের বাইরে থাকা এই সুইডিশ তারকা ম্যাচশেষে শুধু মিলান-পর্বই নয়, পেশাদার ফুটবল ফুটবলকেও বিদায় বলে দিয়েছেন। ১৯৯৯ সালে সুইডিশ ক্লাব মালমো এফসি দিয়ে শুরু। এরপর নেদারল্যান্ডস, ইতালি, স্পেন, ফ্রান্স, ইংল্যান্ড ও যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন ক্লাবের হয়ে শেষ পর্যন্ত সমাপ্তি টানলেন এসি মিলানে। নামের পাশে ৯৮৮ ম্যাচ, ৫৭৩ গোল আর ৩২টি ট্রফি নিয়ে।মিলানে এর আগেও একবার খেলে গিয়েছিলেন। ২০১০-১১ মৌসুমে বার্সেলোনা থেকে ধারে এসে, পরের বছর চুক্তিবদ্ধ হয়ে। দ্বিতীয়বার ফেরেন ২০২০ সালের জানুয়ারিতে। দুই দফায় মোট ১৬৩ ম্যাচ খেলে ইতালির ক্লাবটির হয়ে করেছেন ৯৩ গোল। যদিও গত দুই মৌসুমে চোটের কারণে খেলার সুযোগ পেয়েছেন কমই।

কাল ইব্রাকে বিদায় দিতে মিলানের সমর্থকেরা নিয়ে এসেছিলেন বড় ব্যানার, লেখা ছিল ‘গুডবাই’। সঙ্গে ছিল তাঁর নামে জয়ধ্বনি। তিন দিন আগেও নিজেকে ‘সুপারম্যান’ দাবি করা ইব্রা সমর্থকদের অভিবাদন পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। চোখ ছলছল হয়ে ওঠে তাঁর। হাত দিয়ে বুকের ওপর হৃদয়ের আকৃতি তৈরি সমর্থকদের দিকে ছুড়ে দেন উড়ন্ত চুমো।ম্যাচের পরেও ছিল বিশেষ একটি অনুষ্ঠান। যেখানে মিলানের খেলোয়াড় ও স্টাফরা তাঁকে মাঠে গার্ড অব অনার দেন। ম্যাচ শেষে ইব্রা জানান, অবসরের সিদ্ধান্তটা তিনি কাউকেই আগাম বলেননি, ‘আমার পরিবারও জানত না। আমি চেয়েছিলাম, আমার অবসরের খবরটা সবাই একসঙ্গে শুনুক।’বেশ কিছুদিন সাংবাদিকদের কাছ থেকে ভবিষ্যৎ বিষয় প্রশ্নের মুখোমুখি হতে ভয় পেতেন উল্লেখ করে ইব্রা বলেন, ‘সাংবাদিকরা ভবিষ্যৎ নিয়ে জিজ্ঞেস করলে কী বলব এ আতঙ্কে থাকতাম এত দিন। এখন বলব, আমি প্রস্তুত।’বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের সমাপ্তি টেনে ইব্রা বলেন, ‘পরিবারকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। ধন্যবাদ জানাতে চাই আমার দ্বিতীয় পরিবার-খেলোয়াড়দের। কোচ এবং স্টাফদেরও তাদের দায়িত্বের জন্য ধন্যবাদ, সুযোগ দেওয়ার জন্য ক্লাব পরিচালকদেরও। আর হৃদয় থেকে সবচেয়ে বড় ধন্যবাদ জানাই ভক্তদের।’

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য