Wednesday, February 8, 2023
বাড়িখেলা‘আসল পরীক্ষা’ শুরু মেসির

‘আসল পরীক্ষা’ শুরু মেসির

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, আগরতলা,৩ ডিসেম্বর: দুই ‘ডামিম্যান’কে কাটালেন, গুণিতক চিহ্নে সাজানো দুই জনের ফাঁক দিয়ে এক লাফে বেরিয়ে গেলেন চোখের পলকে, এরপর দুম করে শট নিলেন লিওনেল মেসি। মুহূর্তেই ছোট পোস্টের জালে লুটোপুটি খেল বল। প্রস্তুতির এই ছবি তিনি মাঠের লড়াইয়ে, আসল ক্যানভাসে আঁকেন হরহামেশাই, জাদুকরী বাঁ পায়ে বেশি, ‘দুর্বল’ ডান পায়ে কম, এই যা। কাতার বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন নম্বর মাঠে শুক্রবার সন্ধ্যায় অনুশীলনে মেসির করা ওই ‘গোল’ স্রেফ প্রস্তুতি নয়। সেখানে মিশে থাকল কাতার বিশ্বকাপের নকআউট পর্বে আর্জেন্টিনাকে টেনে নেওয়ার বার্তা, ১৯৮৬ সালের পর থেকে আলবিসেলেস্তাদের চলা বিশ্বকাপের হাহাকার দূর করার মরিয়া আকাঙ্ক্ষা, ব্যর্থতার বৃত্ত ভাঙার প্রত্যয়। মেসি অনুশীলনে নামেন নির্ধারিত সময়ের মিনিট পাঁচেক পরে। তার আগে মাঠে আসেন আক্রমণভাগের সতীর্থ লাউতারো মার্তিনেস, পাওলো দিবালা, হুলিয়ান আলভারেসরা। তারা এসে মাঠের উত্তর কোণে শুরু করেন অনুশীলন। এই পর্বে অবশ্য শুটিং নয়, পাসিং এবং বলের নিয়ন্ত্রণ রাখার দিকে মনোযোগ দিতে দেখা যায় আক্রমণভাগের খেলোয়াড়সহ বাকিদের।একটু পর কোচ লিওনেল স্কালোনির ডাকে সবাই মাঝমাঠে আসার সময় যোগ দেন মেসি। তিনি আর্জেন্টিনার অধিনায়ক, আক্রমণভাগের প্রাণভোমরা, দলকে সামনে থেকে এগিয়ে নেওয়ার মহাভার তার কাঁধে, কিন্তু মধ্যমাঠের বৃত্তে আসার সময় তিনি কিনা সবার পেছনে! এই তথ্যে অবশ্য মেসি ভক্তদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। বাকিটা সময় তিনি সামনে থেকেই সবকিছু করেছেন, যেমনটা করেন মাঠের লড়াইয়ে। গ্রুপ পর্বের পথচলায় মেসি মিষ্টি-তেতো দুই রকম স্বাদই পেয়েছেন। অধিনায়ক হিসেবে শঙ্কার দোলুনিতে দুলেছেন, আবার স্বস্তি এবং ‘প্রথম’ লক্ষ্য পূরণের উচ্ছ্বাসে মেতেছেন। ফরোয়ার্ড হিসেবে গোল করেছেন আবার পুড়েছেন পেনাল্টি মিস করার হতাশায়ও। পোল্যান্ডের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বে আর্জেন্টিনার সবশেষ ম্যাচে স্পট কিক থেকে দলকে এগিয়ে নিতে ব্যর্থ হন মেসি।

 তবে অধিনায়কের না পারা আড়াল হয়ে যায় দুই তরুণ আলেক্সিস মাক আলিস্তের ও আরভারেসের গোলে। শঙ্কার কালো মেঘ সরিয়ে আর্জেন্টিনা পার হয়ে যায় গ্রুপ পর্বের বৈতরণী। সেটাও ‘সি’ গ্রুপের সেরা হয়ে। সৌদি আরবের বিপক্ষে দশম মিনিটে পেনাল্টি থেকে লক্ষ্যভেদ করেছিলেন মেসি, কিন্তু পাঁচ মিনিটের মরু ঝড়ে কোণঠাসা হয়ে পড়ে আর্জেন্টিনা। দুই গোল হজম করে ২-১ ব্যবধানে হেরে কাতার বিশ্বকাপ শুরু করে লিওনেল স্কালোনির দল। টানা ৩৬ ম্যাচ অপরাজিত থাকার আত্মবিশ্বাসের শক্ত দেয়ালে যেন চিড় ধরে। গ্রুপ পর্বে থেকে ছিটকে যাওয়ার শঙ্কাও উঁকি দিতে থাকে দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের আকাশে। মেক্সিকোর বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নেমেও গোলে জন্য হাসফাঁস করতে থাকে আকাশি-সাদা জার্সিধারীরা। যথারীতি ত্রাতা হয়ে আবির্ভূত হন মেসি। ৬৪তম মিনিটে ম্যাচের ‘ডেডলক’ ৩৫ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড খোলেন দূরপাল্লার মুগ্ধতা ছড়ানো শটে। পরে ৮৭তম মিনিটে ফের্নান্দেসের গোলে নিশ্চিত হয় আর্জেন্টিনার জয়। স্বস্তির হাসি ফেরে অধিনায়কের মুখেও। এই হাসিটুকু নকআউট পর্বে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেনে নিতে যে মেসি মরিয়া, তা ফুটে ওঠে এদিনের প্রস্তুতির পরতে পরতে। অনুশীলনে নেমে তাই সতীর্থদের সঙ্গে খোশ-গল্প নয়, তিনি ব্যস্ত হয়ে পড়েন কাজে। পাসিং, শুটিং, রানিং, ড্রিবলিং-সবকিছুই তিনি করলেন ভীষণ মনোযোগ, একাগ্রতা নিয়ে। চোটের কারণে আনহেল দি মারিয়াকে শেষ ষোলোর ম্যাচে না পাওয়াটা কেবল আর্জেন্টিনা নয়, মেসির জন্যও বড় ধাক্কা হয়ে এসেছে। আক্রমণের সুর বেঁধে দেওয়ার বাড়তি দায়িত্ব এখন তার কাঁধে চেপে বসেছে। সে ভার বইতে একটু দেরিতে অনুশীলনে নামলেও মেসি তাই কাটাননি অলস সময়। নিবিড় মগ্নতায় নিজেকে শাণিত করতে থাকেন অনুক্ষণ। চার বছর আগে রাশিয়া বিশ্বকাপে শেষ ষোলোর লড়াইয়ে ফ্রান্সের কাছে হেরে বিদায় ঘণ্টা বেজেছিল আর্জেন্টিনার। শুক্রবার বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে শেষ ষোলোর ম্যাচে মুখোমুখি হবে লাতিন আমেরিকার চ্যাম্পিয়নরা। ‘আসল পরীক্ষা’ শুরু হবে মেসিরও।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য