Wednesday, October 20, 2021
বাড়িজাতীয়বিধানসভায় বিধায়ক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শপথ বাক্য পাঠ করালেন জগদীপ ধনখড়

বিধানসভায় বিধায়ক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শপথ বাক্য পাঠ করালেন জগদীপ ধনখড়

কলকাতা, ৭ অক্টোবর (হি. স.) : বিধায়ক হিসেবে শপথ নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।পূর্ব নির্ধারিত সূচি মেনেই বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজ্য বিধানসভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিধায়ক হিসেবে শপথ বাক্য পাঠ করালেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। বাংলাতেই শপথ বাক্য পাঠ করেন তিনি। একই সঙ্গে এদিন শপথ বাক্য পাঠ করেন সামশেরগঞ্জের বিধায়ক আমিরুল শেখ এবং জঙ্গিপুরের বিধায়ক জাকির হোসেনও।

বিরোধী শূন্য বিধানসভায় শপথ নিলেন মমতা। এদিনের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে বিজেপি-র কোনও বিধায়ক উপস্থিত ছিলেন। মুখ্যমন্ত্রী-সহ মন্ত্রিসভার সদস্যদের রাজভবনে শপথবাক্য পাঠ করাবেন রাজ্যপাল। আর বিধায়কদের বিধানসভায় শপথ বাক্য পাঠ করাবেন বিধানসভার অধ্যক্ষ, এটাই প্রচলিত রীতি। জনপ্রতিনিধিত্ব আইনের ধারায় সেই ক্ষমতা নিজের হাতে নিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় । সম্প্রতি রাজভবন থেকে বিধানসভার সচিবালয়ে সেই বার্তা পাঠানো হয়। তার পরেই পরিষদীয় দফতরের মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান, রাজ্যপাল মমতা-সহ তিন জয়ী বিধায়ককে শপথবাক্য পাঠ করাবেন। ।পূর্ব নির্ধারিত সূচি মেনেই বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে দু’টো নাগাদ বিধানসভায় পৌঁছন তিনি।

 বিধানসভায় তাঁকে বিধায়ক হিসেবে শপথ বাক্য পাঠ করালেন রাজ্যপাল জগদীপ ।বাকি দুই বিধায়ক অর্থাৎ আমিরুল ইসলাম ও জাকির হোসেনকেও শপথবাক্য পাঠ করান তিনি। এরপর মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গেই স্পিকারের ঘরে যান ধনকড়। শপথ গ্রহন অনুষ্ঠানের পর চা চক্রেরও আয়োজন করা হয়েছিল।এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সুব্রত বক্সি, মুকুল রায়, পার্থ চট্টোপাধ্যায়-সহ অন্যান্যরা। এদিনের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল সব সাংসদদের। তবে তাৎপর্যপূর্ণভাবে বিরোধী শিবিরের কারও দেখা পাওয়া যায়নি।তিনজনের শপথগ্রহণের ফলে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভায় তৃণমূলের বিধায়ক সংখ্যা আবারও দাঁড়িয়েছে ২১৩। যে সংখ্যক আসন বিধানসভা ভোটে জিতেছিল ঘাসফুল শিবির (২৯২ টি আসনের মধ্যে)। দুই বিধায়ক (খড়দহ এবং গোসাবার বিধায়ক) মৃত্যু এবং শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের ইস্তফার কারণে তৃণমূলের বিধায়ক সংখ্যা ২১০-এ ঠেকেছিল। আপাতত পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা মোট ২৯০ জন নির্বাচিত বিধায়ক আছেন। চারটি আসন ফাঁকা আছে। যে চারটি কেন্দ্রে (দিনহাটা, শান্তিপুর, খড়দহ এবং গোসাবা) আগামী ৩০ অক্টোবর উপ-নির্বাচন হবে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য