Wednesday, June 29, 2022
বাড়িবিশ্ব সংবাদবিশ্ব অন্ধকার সময়ের মুখোমুখি: বাইডেন

বিশ্ব অন্ধকার সময়ের মুখোমুখি: বাইডেন

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৪ মে।  ইউক্রেইনে রাশিয়ার আক্রমণের কারণে বিশ্ব ‘আমাদের যৌথ ইতিহাসের একটি অন্ধকার সময় পাড়ি দিচ্ছে’ বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।মঙ্গলবার এশিয়ার গুরুত্বপূর্ণ মিত্র দেশগুলোর নেতাদের তিনি একথা বলেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

বাইডেন বলেছেন, “ইউক্রেইনে যুদ্ধ এখন বৈশ্বিক ইস্যুতে পরিণত হয়েছে, যা আন্তর্জাতিক ব্যবস্থা রক্ষার গুরুত্বের ওপর জোর দিচ্ছে।”মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সুর মিলিয়ে জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা বলেছেন, ইউক্রেইনে আক্রমণের মতো ঘটনা এশিয়ায় হওয়া উচিত হবে না।প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর প্রথম এশিয়া সফরে এসে টোকিওতে বৈঠকে বাইডেন জাপান, অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বসেন।

কোয়াড নামে পরিচিত চার দেশের এ জোটের বৈঠকে এশিয়ায় চীনের ক্রমবর্ধমান প্রভাবসহ নিরাপত্তা ও অর্থনৈতিক উদ্বেগ এবং ইউক্রেইনে রাশিয়ার আক্রমণ নিয়ে সদস্য দেশগুলোর মতপার্থক্য নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। বাইডেন আগের দিনই চীনকে তাইওয়ান ইস্যুতে ‘বিপদ নিয়ে খেলার’ ব্যাপারে সতর্ক করেছিলেন। চীন হামলা চালালে তাইওয়ানকে সামরিকভাবে সুরক্ষা দেওয়ারও অঙ্গীকার করেন তিনি, যা এ সংক্রান্ত যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘদিনের অবস্থানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

মঙ্গলবার কোয়াড সম্মেলনের প্রারম্ভিক ভাষণে বাইডেন বলেন, “আমাদের বৈঠক স্বৈরতন্ত্র বনাম গণতন্ত্র নিয়ে এবং আমরা যেন প্রতিক্রিয়া দেখাতে পারি তা নিশ্চিতে এ বৈঠক হচ্ছে।”ইউক্রেইনের গম রপ্তানিতে রাশিয়ার অবরোধ বৈশ্বিক খাদ্য সংকটকে আরও গভীর করায় ইউক্রেইন যুদ্ধ বিশ্বের সব অংশেই প্রভাব ফেলবে, বলেছেন তিনি।বৈশ্বিক প্রতিক্রিয়ায় নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষেত্রে মিত্রদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র কাজ করবে এমন অঙ্গীকারের পাশাপাশি বাইডেন বিশ্ব ব্যবস্থা এবং বিশ্বের ‘যেখানেই সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘিত হোক না কেন’ তার সুরক্ষার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেছেন। বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে ‘শক্তিশালী ও স্থায়ী অংশীদার হয়েই’ থাকবে।

তাদের বৈঠকের পর জাপানের প্রধানমন্ত্রী কিশিদা সাংবাদিকদের বলেছেন, ভারতসহ জোটের সদস্য চার দেশই আইনের শাসন, সার্বভৌমত্ব ও আঞ্চলিক অখণ্ডতার গুরুত্বের ব্যাপারে এবং ‘জোর করে স্থিতাবস্থা বদলের একতরফা চেষ্টা যে বরদাশত করা হবে না’ সে ব্যাপারে একমত হয়েছে।কোয়াডের সদস্য দেশগুলোর মধ্যে ভারতই একমাত্র দেশ যারা এখন পর্যন্ত ইউক্রেইনে রাশিয়ার হামলার সরাসরি সমালোচনা করেনি।কোয়াডের এই দেশগুলো ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে চীনের কর্মকাণ্ডের ওপর নজরদারি বাড়াতে সমুদ্রে নতুন একটি পর্যবেক্ষণ উদ্যোগ হাতে নেওয়ার পাশাপাশি আগামী ৫ বছরের মধ্যে অবকাঠামো ও বিনিয়োগ খাতে অন্তত ৫ হাজার কোটি ডলার ব্যয়েরও ঘোষণা দিয়েছে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য