Tuesday, May 28, 2024
বাড়িবিশ্ব সংবাদচীনের একটি প্রদেশে যত ইচ্ছা তত সন্তান নিতে পারবেন দম্পতি ও অবিবাহিতরাও

চীনের একটি প্রদেশে যত ইচ্ছা তত সন্তান নিতে পারবেন দম্পতি ও অবিবাহিতরাও

স্যন্দন ডিজিটেল ডেস্ক,৩১জানুয়ারি: চীনের সিচুয়ান প্রদেশের দম্পতিরা যত ইচ্ছা তত সন্তান নিতে পারবেন। এই অনুমতি তাঁদের দেওয়া হবে। কারণ, চীন ক্রমাগত কমে যাওয়া জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালাচ্ছে। খবর বিবিসির।শুধু দম্পতিই নয়, সিচুয়ান প্রদেশের নীতিমালার পরিবর্তন অনুসারে অবিবাহিত সঙ্গীরাও এখন বেশি সন্তান নিতে পারবে। এর আগে একা নারীর সন্তান নেওয়ার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা ছিল।

৬০ বছরের মধ্যে গত বছর চীনের জনসংখ্যা সর্বনিম্ন ছিল। কয়েক দশক ধরে চীনে এক সন্তান নীতি ছিল। ২০২১ সালে দম্পতিদের জন্য জাতীয়ভাবে তিন সন্তান নীতি চালু করা হয়।২০১৬ সালে চীন বিতর্কিত এক সন্তান নীতি বাতিল করে। ১৯৭৯ সালে এই নীতি প্রবর্তন করা হয়। যেসব পরিবার এই নিয়ম ভেঙেছে, তাদের জরিমানা করা হয়েছে। কিছু ক্ষেত্রে তারা চাকরি হারিয়েছে। এ ধরনের নীতি থাকার কারণে অনেক নারী গর্ভপাত করতে বাধ্য হতো।

তবে ২০১৬ সালে এক সন্তান নীতিতে বদল আনলেও চীনে জন্মহার কমে যাওয়া বন্ধ হয়নি। গত বছর প্রথমবারের মতো চীনে মৃত্যুহার জন্মহারকে ছাড়িয়ে গেছে। এখন সিচুয়ান প্রদেশে চীনা পরিবারে সন্তান নিতে কোনো সীমা থাকবে না। চীনের দক্ষিণ–পশ্চিমের এই প্রদেশের জনসংখ্যা আট কোটি।চীনা প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং জন্মহার বাড়ানোকে গুরুত্ব দিয়েছেন। জনসংখ্যার নিম্নহারকে ধীর অথবা স্থগিত করতে সরকার কর বিরতি ও মাতৃস্বাস্থ্যসেবা উন্নত করার প্রস্তাব দিয়েছে।চীনে এখনো করোনাজনিত মৃত্যু হচ্ছে। গত বছরের ডিসেম্বর মাসে জিরো-করোনা বিধিনিষেধ তুলে দেওয়ার পর দেশটির বিভিন্ন শহরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে।জাপানসহ প্রতিবেশী দেশগুলোও জন্মহার কমে যাওয়ার মতো সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে। জাপানের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এসব কারণে তাঁর দেশ সামাজিক দায়িত্ব পালন করতে পারছে না।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য