Wednesday, June 12, 2024
বাড়িরাজ্যশারদোৎসব নিয়ে নিগমের একাধিক সিদ্ধান্ত : মেয়র

শারদোৎসব নিয়ে নিগমের একাধিক সিদ্ধান্ত : মেয়র

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ১৬ সেপ্টেম্বর : আসন্ন দূর্গা পূজা নিয়ে আগরতলা পুর নিগম একাধিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। নতুন করে আগরতলার শহর সাজিয়ে পুর নিগম শহরবাসীকে সার্বজনীন দুর্গাপূজা অংশ নেওয়া জন্য বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। শুক্রবার আগরতলা পুর নিগমের কনফারেন্স হলে সাংবাদিক সম্মেলন করে এ কথা জানান মেয়র দীপক মজুমদার।

ইতিমধ্যেই  পুর নিগমের পক্ষ থেকে আসন্ন শারদীয়া দূর্গোৎসবের প্রাক প্রস্তুতি হিসাবে কাউন্সিল ও এম,আই,সি মিটিং সম্পূর্ণ হয়েছে। আসন্ন দূর্গোৎসবে যেন আগরতলা শহর আরো বেশি পরিষ্কার , পরিচ্ছন্ন ও আলোকময় থাকে এবং পূজোয় যেন মানুষের কোন প্রকার অসুবিধা না হয়, দূর্গোৎসব যেন সার্বিক ভাবে নির্ভিগ্নে কাটে তার জন্য পুর নিগমের পক্ষ থেকে সবধরনের পস্তুতি গ্রহন করার জন্য উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে বলে জানান মেয়র। এই প্রথম বারের মত আগরতলা পুর নিগম সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুর নিগম এলাকার সকল ক্লাব, সংস্থা, পূজা কমিটি, পূজা উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে প্রাইজ মানিসহ সুদৃশ্য ট্রফি দিয়ে পুরুস্কৃত করা হবে। এর মধ্যে রয়েছে সেরার সেরা প্রতিমা,  সেরার সেরা মন্ডপ, সেরার সেরা থিম, সেরার সেরা আলোক সজ্জা ও সম্পূর্ণ মহিলাদের দ্বারা পূজা পরিচালনার জন্য ইত্যাদি। এই ৫ টি পুরুস্কার সমগ্র আগরতলা শহরের জন্য দেওয়া হবে।

সঙ্গে থাকবে ৫০হাজার টাকা করে প্রাইজ মানি ও সুদৃশ্য ট্রফি। আবার জোন ভিত্তিকও দেওয়া হবে আরো ৪ টি করে পুরুস্কার। এর মধ্যে সেরা প্রতিমা , সেরা মন্ডপ , সেরা থিম ও সেরা আলোক সজ্জা। সঙ্গে থাকবে ২৫ হাজার টাকা করে প্রাইজ মানি ও সুদৃশ্য ট্রফি। সম্পুর্ণ নিরপেক্ষতা বজায় রেখে বিচারকদের রায় অনুসারে পুরুস্কার দেওয়া হবে। কোন ক্ষেত্রে একই ক্যাটাগরিতে বিচারকদের রায় অনুসারে যদি যুগ্ম পুরুস্কারের জন্য বিবেচিত হয় সেক্ষত্রে প্রাইজ মানি সমান ভাবে ভাগ করে দেওয়া হবে। পুর নিগমের ৪ টি জোনে ইতি মধ্যেই পূজার অনুমতি ফর্ম এবং এই পুরুস্কারের জন্য আবেদন পত্র বিতরন করা হচ্ছে। ক্লাব, সংস্থা, পূজা কমিটি, পূজা উদ্যোক্তাদেরপুর নিগম এলাকার সকল ক্লাব, সংস্থা, পূজা কমিটি, পূজা উদ্যোক্তাগণ নিজ নিজ জোন থেকে এই ফর্মগুলো সংগ্রহ করে নিতে পারেন বলে জানান মেয়র দীপক মজুমদার।

প্রতিমা নিরন্জন সুষ্ঠভাবে সম্পুন্ন করার লক্ষে আগরতলা পুর নিগমের পক্ষ থেকে দশমীঘাটকে ব্যাপক সংস্কার করা হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে রাস্তা ম্যারামতি, আলোকসজ্জা, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যাবস্থা এবং অত্যাধুনিক ট্রলির মাধ্যমে প্রতিমা নিরঞ্জন সম্পুন্ন করার ব্যাবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া বেশ কিছু সিদ্ধান্ত সর্বসন্মতি ভাবে নেওয়া হয়েছে। এইবার দশমীঘাটে বাদ্যযন্ত্র, ডিজে সিস্টেম নিয়ে প্রতিমা নিরঞ্জন স্থানে প্রবেশ নিষেধ করে বিকল্প ব্যবস্থা হিসাবে আগরতলা পুর নিগমের তরফ থেকে বাদ্যযন্ত্র, এবং মহিলাদের দ্বারা পরিচালিত মাঙ্গলিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। দশমীঘাটের জন্য অস্থায়ী সৌচালয়ের ব্যাবস্থা করা হবে। প্রতিমা নিরঞ্জনে তিন ধাপে প্রর্যাপ্ত শ্রমিকের ব্যাবস্থা রাখা হবে। প্রতিমা নিরঞ্জনের জন্য দুটি ক্রেনের ব্যাবস্থা রাখা হবে এবং শিব বাড়ি থেকে দশমীঘাট অবদি ত্রিবর্ন রঞ্জিত আলোক সজ্জায় সজ্জিত করা হবে। এছাড়া আগরতলা শহরের আরো ছয়টি প্রধান সড়ককে ত্রিবর্ন রঞ্জিত আলোক সজ্জায় সজ্জিত করা হবে। ত্রিবর্ন রঞ্জিত আলোক সজ্জায় সজ্জিত করা রাস্তা গুলি হল পোষ্ট অফিস চৌমুহনী থেকে কামান চৌমুহনি , মঠ চৌমুহনি থেকে এম বি বি কলেজ গেইট, ওল্ড আরাইমেস চৌমুহনি থেকে নর্থ গেইট ভাইয়া কর্নেল চৌমুহনি, দূর্গা চৌমুহনি থেকে বটতলা , বটতলা শিব মন্দির থেকে দশমীঘাট, নর্থ গেইট থেকে গেইল অফিস পর্যন্ত। উৎসবের দিন গুলি সুষ্ঠ ভাবে কাটাতে সমস্ত ক্লাব ও সামাজিক সংস্থা গুলিকে নেশার বিরুদ্ধে বার্তা দেওয়ার আহ্বান জানান মেয়র।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য