Wednesday, July 24, 2024
বাড়িখেলামেসি প্রথম ‘গোট’, দ্বিতীয়টি কে

মেসি প্রথম ‘গোট’, দ্বিতীয়টি কে

স্যন্দন ডিজিটেল ডেস্ক, ১৯ জুন: পেশাদার ফুটবল আর খেলেন না। হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে ২০২১ সালে সের্হিও আগুয়েরো ফুটবলকে বিদায় বলেন। মাঠের ফুটবলকে বিদায় বললেও আর্জেন্টিনার ফুটবলকে তো বিদায় বলা তাঁর পক্ষে সম্ভব নয়!এখনো বড় টুর্নামেন্টে আর্জেন্টিনার খেলা মানেই দলে না থেকেও আছেন আগুয়েরো। এবার কোপা আমেরিকা শুরুর আগেও তেমনটা দেখা যাচ্ছে। টুর্নামেন্টে মাঠে নামার আগে লিওনেল মেসিসহ আর্জেন্টিনাকে অভিনব উপায়ে স্বাগত জানিয়েছেন আর্জেন্টিনার সাবেক এই ফুটবলার।আগামী পরশু শুরু হচ্ছে কোপা আমেরিকা। প্রথম ম্যাচেই মাঠে নামবে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা। কানাডার বিপক্ষে আটলান্টার মার্সিডিজ-বেঞ্জ স্টেডিয়ামে সকাল ৬টায় মাঠে নামবে তারা। এর আগে আমেরিকাতে প্রস্তুতি সেরে নিচ্ছে আর্জেন্টিনা।

তবে কোপা আমেরিকা সামনে রেখে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে গতকাল একটি পোস্ট করেছেন আগুয়েরো। সেখানে আর্জেন্টিনার পতাকায় মোড়ানো দুটি ছাগল ও নিজের ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘সবার উদ্দেশ্যে, এই “গোটস” দুটি কারা? মন্তব্য করুন, আমি পড়ব।’সেখানে হ্যাশট্যাগ দিয়ে তিনি লিখেছেন, ‘“গোটস”রা চলে এসেছে।’ “গোটস” মানে কী, সেটা নিশ্চয়ই সবারই জানা—গ্রেটেস্ট অব অল টাইম। বাংলায় যার অর্থ, সর্বকালের সেরা।আগুয়েরোর চোখে সর্বকালের সেরা কে, সেটাও মীমাংসিত প্রশ্ন। তিনি বারবারই বলেছেন, লিওনেল মেসিই সর্বকালের সেরা। তবে কেন তিনি ছবিতে দুটি ছাগল রেখেছেন, সেটা নিশ্চিত নয়। অর্থাৎ দুটি ছাগলের ছবি পোস্ট করেছেন, রূপক হিসেবে একটিকে যদি মেসি ধরা হয়, তবে অন্যটি কে?

আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেজ অবশ্য আগুয়েরোর পোস্টে উত্তর দিয়েছেন। তবে উত্তরের শেষে প্রশ্নবোধক চিহ্নও রেখেছেন মার্তিনেজ, ‘অ্যাঞ্জেলিতো ও লিও?’ অর্থাৎ মেসি ও আনহেল দি মারিয়াকে বুঝিয়েছেন মার্তিনেজ। তাঁদের নিয়েই ২০২২ সালে কাতারে বিশ্বকাপ জেতেন মার্তিনেজ। আর্জেন্টিনা জাতীয় দলে ১৬ বছর ধরে সতীর্থ মেসি ও দি মারিয়া। এ সময়ে দুজনে আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের হয়ে ১১০ ম্যাচ খেলেছেন, জিতেছেন ৭০ ম্যাচ, ড্র ২৭টি এবং ১৩ ম্যাচ হেরেছেন।অনলাইন ক্যাসিনো ‘স্টেক’–এর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর আগুয়েরো এই প্রতিষ্ঠানকে বলেছেন, ‘আমি সর্বকালের সেরার সঙ্গে খেলেছি। আর্জেন্টিনা যদি কোপা আমেরিকা জিততে পারে, তাহলে সর্বকালের অন্যতম সেরা দল হিসেবে নিজেদের নামটা জুড়ে দিতে পারবে। এই টুর্নামেন্টে আর্জেন্টিনা সব সময়ই ফেবারিট। চাপ? আমার মনে হয় না খুব বেশি থাকবে। আমরা এসবে অভ্যস্ত। এখন এটা দলের কৌশল ও প্রত্যয় ধরে রাখতে হবে। আমরা যা জিতেছি, এর কারণেই জিতেছি।’আর্জেন্টিনার কোপা আমেরিকার প্রস্তুতিও ভালোভাবে সেরেছে। টুর্নামেন্টের আগে খেলা দুটি প্রীতি ম্যাচেই জিতেছে তারা। ইকুয়েডরকে ১-০ গোলে হারানোর পর গুয়াতেমালার বিপক্ষে তারা জিতেছে ৪-১ গোলে। গুয়াতেমালার বিপক্ষে মেসি করেন জোড়া গোল।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য