Saturday, December 3, 2022
বাড়িখেলামেসির বিদায়েও কাঁদবে বিশ্ব, ফেদেরারের উদাহরণ টেনে স্কালোনি

মেসির বিদায়েও কাঁদবে বিশ্ব, ফেদেরারের উদাহরণ টেনে স্কালোনি

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, আগরতলা, ২৯ সেপ্টেম্বর।।সদ্য সাবেক এই টেনিস তারকার বিদায় সারা বিশ্বকে যেভাবে নাড়া দিয়েছে, প্রতিপক্ষ কেঁদেছে, মেসির ক্ষেত্রেও বিষয়টা ঠিক তেমনই হবে বলে অনুভব করছেন স্কালোনি। টেনিস খেলাটিকে ফেদেরার যেভাবে শৈল্পিক পর্যায়ে নিয়ে গেছেন, ফুটবলে মেসির অবদান তার মতোই বলে বিশ্বাস আর্জেন্টিনা কোচের। নিউ জার্সির রেড বুল অ্যারেনায় বাংলাদেশ সময় বুধবার সকালে জ্যামাইকার বিপক্ষে ৩-০ গোলে জয়ের ম্যাচে বদলি নেমে দুটি গোল করেন মেসি। চার দিন আগে হন্ডুরাসের বিপক্ষে ৩-০ ব্যবধানে জয়ের ম্যাচেও জোড়া গোল উপহার দিয়েছিলেন তিনি। এর আগে জুনের একটি প্রীতি ম্যাচে এস্তোনিয়ার বিপক্ষে ৫-০ ব্যবধানে জয়ের ম্যাচে সবগুলো গোলই করেন ৩৫ বছর বয়সী তারকা। পিএসজির জার্সিতেও চলতি মৌসুমের শুরু থেকে দারুণ ছন্দে আছেন মেসি। গোল করছেন ও করাচ্ছেন। সবখানেই মেসি এগিয়ে চলেছেন আপন মহিমায়। জ্যামাইকা ম্যাচ শেষে মেসি প্রসঙ্গ উঠতেই স্কালোনির কণ্ঠে ফুটে উঠল উচ্ছ্বাস। এ নিয়ে বলতে গিয়েই টানলেন, কদিন আগে লেভার কাপ দিয়ে দীর্ঘ ২৫ বছরের ক্যারিয়ারের ইতি টানা ফেদেরারের প্রসঙ্গ। তার বিদায় ঘিরে পুরো টেনিস বিশ্ব হয়ে ওঠে আবেগপ্রবণ। ফুটবলে মেসির অবস্থানও একইরকম বলে বিশ্বাস স্কালোনির। 

“আপনার মতোই আমি মেসির খেলা উপভোগ করি। সে ফেদেরারের মতো একজন। ফেদেরার অবসর নেওয়ায় সারা বিশ্ব আবেগী হয়ে ওঠে এটা ভেবে যে, সে আর খেলবে না। তাকে খেলতে দেখাটা চমৎকার। মেসির ক্ষেত্রে বিষয়টা তাই। কিছু ক্ষেত্রে বলা যায় বিষয়টা আরও বেশি, কারণ ফুটবল বিশ্বে আরও ছড়ানো। একারণে তাকে দেশ ভুলে পুরো বিশ্বের মানুষ উপভোগ করে।”স্কালোনির হাত ধরে তার আগে থেকেই দারুণ ছন্দে এগিয়ে চলেছে আর্জেন্টিনা দল। টানা ৩৫ ম্যাচ ধরে অপরাজিত তারা। পুরো দলটি যেন হয়ে উঠেছে একটি পরিবার। বলার অপেক্ষা রাখে না যে ‘সুখী পরিবারটির’ কেন্দ্রে আছেন মেসি। খেলোয়াড়ি জীবনে খুব ছোট পরিসরে হলেও মেসির সঙ্গে ড্রেসিং রুম ভাগাভাগি করার অভিজ্ঞতা আছে স্কালোনির। আর গত চার বছর ধরে তিনি দলের কোচ। দলের সেরা তারকা এবং নিঃসন্দেহে ফুটবল ইতিহাসের সেরাদের একজনকে খুব কাছ থেকে দেখছেন দীর্ঘ দিন ধরে। শুরুর দিনগুলোর মতো এখনও মেসিকে মুগ্ধ চোখেই দেখেন তিনি। “মাঠে তাকে দেখাটা চমৎকার অভিজ্ঞতা। তাকে কোচিং করানোর সুযোগ আমি পেয়েছি। আমি যদি সমর্থকও হতাম, তাহলে তাকে দেখতে টিকেটের জন্য খরচ করতাম। এখন কেবলই তাকে উপভোগ করতে হবে, কারণ তার মতো আর কেউ আসবে কিনা, জানি না।”

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য