Monday, May 16, 2022
বাড়িবিশ্ব সংবাদইউক্রেইনে বিদেশি হস্তক্ষেপে ‘ত্বরিত’ প্রতিক্রিয়ার হুমকি পুতিনের

ইউক্রেইনে বিদেশি হস্তক্ষেপে ‘ত্বরিত’ প্রতিক্রিয়ার হুমকি পুতিনের

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক। আগরতলা। ২৮ এপ্রিল।  কোনো দেশ ইউক্রেইনের যুদ্ধে হস্তপেক্ষ করার চেষ্টা করলে ‘বিদ্যুৎ গতির’ প্রতিক্রিয়ার মুখোমুখি হবে বলে হুঁশিয়ার করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।বুধবার সেইন্ট পিটারবুর্গ শহরে রাশিয়ার আইনপ্রণেতাদের সঙ্গে কথা বলার সময় পুতিন এ মন্তব্য করেন বলে বিবিসি জানিয়েছে।

তিনি বলেন, “বাইরের কেউ ইউক্রেইনে হস্তক্ষেপের চেষ্টা করলে এবং রাশিয়ার জন্য কৌশলগত হুমকি সৃষ্টি করলে আমাদের প্রতিক্রিয়া হবে বিদ্যুৎ গতির। যে কারও গর্ব থামিয়ে দেওয়ার মতো সব সরঞ্জাম আমাদের আছে। আর আমরা এগুলো নিয়ে বড়াই করব না, প্রয়োজন হলে ব্যবহার করবো।”প্রতিক্রিয়াগুলো কী হবে তার সব সিদ্ধান্ত ইতোমধ্যে নেওয়া হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট। কিন্তু এ বিষয়ে বিস্তারিত আর কিছু বলেননি তিনি।

এসব মন্তব্যের মাধ্যমে পুতিন ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ও পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করা হতে পারে, এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন বলে ধারণা পশ্চিমা বিশ্লেষকদের।  ইউক্রেইনের পশ্চিমা মিত্ররা দেশটিতে অস্ত্র সরবরাহের পদক্ষেপ জোরদার করেছে আর ইউক্রেইনে যেন রাশিয়াকে পরাজিত করতে পারে তা নিশ্চিত করার অঙ্গীকার করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

মঙ্গলবার জার্মানিতে এক সম্মেলনে পশ্চিমা দেশগুলো ইউক্রেইনে সামরিক সহায়তা আরও বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পরদিন পুতিন এ হুঁশিয়ারি জানালেন।ওই সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন যুদ্ধে ইউক্রেইনের জয় নিশ্চিত করতে ‘কঠোর পরিশ্রম’ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। আর জার্মানির সরকার তাদের নীতিতে বড় ধরনের পরিবর্তন ঘটিয়ে ইউক্রেইনকে প্রায় ৫০ টি বিমান-বিধ্বংসী ট্যাংক দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে ইউক্রেইনের মিত্রদের যুদ্ধে হস্তক্ষেপের আওতা বাড়ানো নিয়ে সতর্ক করতেই পুতিন এমন হুমকি দিয়েছেন বলে ধারণা পশ্চিমা বিশ্লেষকদের।   

পশ্চিমা দেশগুলোর কর্মকর্তারা বলছেন, ইউক্রেইনের পূর্বাঞ্চল দনবাসে অভিযান চালাতে গিয়েও বাধার মুখে পড়ছে রাশিয়ার বাহিনীগুলো।ইউক্রেইনের রাজধানী কিইভ ও এর আশপাশ থেকে বাহিনী প্রত্যাহার করে নেওয়ার পর দনবাস নিয়ন্ত্রণে নিতে গত সপ্তাহে ব্যাপক আক্রমণ শুরু করে রাশিয়া।কিন্তু পশ্চিমা এক কর্মকর্তার ভাষ্য অনুযায়ী, ইউক্রেইনীয়দের কঠোর প্রতিরোধের মুখে রাশিয়ার বাহিনীগুলো দেখছে ‘বিষয়টি সহজ নয়’ আর তারা ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়ছে।  আরেক দিকে মস্কো বুলগেরিয়া ও পোল্যান্ডে গ্যাস সরবরাহ পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়ার পর এক মন্তব্যে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বলেছে, রাশিয়া গ্যাস নিয়ে ‘ব্ল্যাকমেইল’ করছে।ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডার লায়েন বলেছেন, এতে সরবরাহকারী হিসেবে রাশিয়ার ‘অবিশ্বস্ততা’ ফুটে উঠেছে।

সম্পরকিত প্রবন্ধ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সবচেয়ে জনপ্রিয়

সাম্প্রতিক মন্তব্য