৪০ বছর পর্যন্ত খেলা চালিয়ে যেতে পারে রোনালদো: রুনি

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, ১১ সেপ্টেম্বর: বয়সে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর চেয়ে আট মাসের ছোট ওয়েইন রুনি খেলা ছেড়ে শুরু করে দিয়েছেন কোচিং ক্যারিয়ার। আর এখনও শীর্ষ পর্যায়ে দিব্যি খেলে চলেছেন রোনালদো। ৩৬ বয়সে নতুন চ্যালেঞ্জ নিয়ে ফিরেছেন ম্যানচেষ্টার ইউনাইটেডে! সাবেক সতীর্থের এই দুর্বার পথচলায় অবাক নন রুনি। তার মতে, সময়ের সঙ্গে নিজের খেলার ধরণ বদলে ফেলা রোনালদো খেলা চালিয়ে যেতে পারবেন ৪০ বছর বয়স পর্যন্ত।

গ্রীষ্মকালীন দলবদলের শেষ সময়ে ইউভেন্তুস থেকে দুই বছরের চুক্তিতে ইউনাইটেডে ফেরেন রোনালদো। চুক্তির মেয়াদ বাড়তে পারে আরও এক বছর। ২০০৩ থেকে ২০০৯ সালে এই ক্লাবের হয়ে খেলেই রোনালদো হয়ে উঠেছিলেন সময়ের অন্যতম সেরা ফুটবলার।ইউনাইটেড থেকে রোনালদো চলে যাওয়ার পর কেটে গেছে ১২টি বছর। বদলে গেছে পর্তুগিজ অধিনায়কের খেলার ধরনও। ইউনাইটেডে থাকাকালীন উইং ধরে প্রতিপক্ষের বক্সে ত্রাস সৃষ্টিকারী রোনালদো এখন অনেকটাই গোলস্কোরার।বয়সের সঙ্গে নিজের খেলার ধরণ পাল্টে ফেললেও রোনালদো ক্লাব ও জাতীয় দলে সমান কার্যকর। কিছুদিন আগেই ইরানের আলি দাইকে টপকে হয়েছেন ছেলেদের আন্তর্জাতিক ফুটবলের সর্বোচ্চ গোলদাতা।

বছর খানেক আগে কোচিং ক্যারিয়ার শুরু করা রুনি বর্তমানে দ্বিতীয় বিভাগের দল ডার্বি কাউন্টির দায়িত্বে। তার মনে হচ্ছে, আগের মেয়াদে ওল্ড ট্যাফোর্ডে খেলা রোনালদো মাঠে ছিলেন ভীষণ ক্ষিপ্র; এখন তার ভূমিকা গোলস্কোরারের।"শেষবার যখন সে ইউনাইটেডে খেলেছিল, তখন গতি ও শক্তির সমন্বয়ে সে ছিল একজন রানার, দুর্দান্ত ড্রিবলার। বর্তমানে সে একজন গোলস্কোরার। আমি মনে করি নিজের খেলা সে নাটকীয়ভাবে মানিয়ে নিয়েছে।"অনেকেই মনে করছেন, এই বয়সে প্রিমিয়ার লিগের তীব্র প্রতিযোগিতাপূর্ণ ও শারীরিক খেলায় ভুগতে পারেন রোনালদো। তবে ইউনাইটেডের ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোলদাতা রুনির বিশ্বাস, ১২ বছর আগে ক্লাব ছেড়ে যাওয়া সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ তারকার চেয়ে এখন ‘একেবারেই ভিন্ন খেলোয়াড়’।“তার যোগ্যতা অবশ্যই একটা ব্যাপার, কিন্তু তারপরও সে খুব ভালোভাবে নিজের দেখাশোনা করে। সে এখনও দারুণ অবস্থায় আছে। এটা আমাকে অবাক করবে না, যদি দেখি সে রায়ান গিগসের মত ৪০ বছর বয়সেও খেলছে এবং গোল করছে।”নিউক্যাসল ইউনাইটেডের বিপক্ষে শনিবার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে দ্বিতীয় মেয়াদে অভিষেক হতে পারে রোনালদোর।