২৪ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিল সদর জেলা যুব কংগ্রেস এবং এন এস ইউ আই

স্যন্দন প্রতিনিধি। আগরতলা। ২৭ এপ্রিল : জেলা শাসকের বরখাস্ত এবং আইনিভাবে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করল সদর জেলা যুব কংগ্রেস এবং এন এস ইউ আই। আইনকে বাঁচানোর নাম করে সোমবার রাতে বিয়ে বাড়িতে বর্বরোচিত তান্ডব চালিয়েছে পশ্চিম জেলার জেলাশাসক শৈলেশ কুমার যাদব। এ ঘটনাকে সভ্য সমাজে কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না।

সিঙ্গাম স্টাইলে মহিলা পুলিশ ছাড়া বিয়ে বাড়িতে মহিলাদের অসভ্য ভাষায় গালিগালাজ করেছে জেলাশাসক। বিয়ে বাড়িতে পুরোহিতকে মারধরও করেছেন। জেলাশাসক শিক্ষিত হয়ে এধরনের ঘটনা ঘৃন্য ব্যাপার। সদর জেলা যুব কংগ্রেস এবং এন এস ইউ আই তীব্র নিন্দা জানিয়ে জেলাশাসককে বরখাস্ত করার জন্য সরকারকে ২৪ ঘণ্টার সময় বেঁধে দেওয়া হয়। মঙ্গলবার প্রদেশ কংগ্রেস ভবনে সাংবাদিক সম্মেলন করে এ কথা জানান সদর জেলা যুব কংগ্রেসের সভাপতি অনির্বাণ সাহা। জেলাশাসকের এধরনের আচরণে মানুষ প্রতিবাদের উপর থেকে আস্থা হারিয়ে ফেলেছে। মুখ্যমন্ত্রীর অনুষ্ঠানে গত সোমবারও ভিড় ছিল।

 কিন্তু কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেন নি জেলাশাসক। কিন্তু রাতের বেলা বিয়ে বাড়িতে গিয়ে জেলা শাসক এ ধরনের কান্ড কারখানা মগ্ন হওয়াতে ২৪ ঘন্টার মধ্যে জেলা শাসককে বরখাস্ত করার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানানো হচ্ছে। বুধবার বিকাল ৪ টা মধ্যে যদি প্রশাসন জেলাশাসককে বরখাস্ত না করেন তাহলে যুব কংগ্রেস এবং এন এস ইউ আই যৌথভাবে আন্দোলনে নামবে। কোভিড পরিস্থিতির মধ্যেও আন্দোলন করা হবে। এমনটাই হুঁশিয়ারি দিলেন তিনি। এদিকে এন এস ইউ আই রাজ্য সভাপতি রাকেশ দাস বলেন পুরোহিতের উপর হাত তোলা মানে জেলা শাসক ব্রাহ্মণ সমাজের উপর হাত তুলেছেন। বহিঃ রাজ্য থেকে বিয়েতে আসা অতিথিদের সামনে রাজ্যের মানুষের সম্মানহানি করেছেন। তাই জেলাশাসককে বরখাস্ত করতে হবে। এবং জেলাশাসক শৈলেশ কুমার যাদবকে রাজ্যবাসীর কাছে ক্ষমা চাইতে হবে বলে জানান তিনি।