১মে নয় ৫ মে বিশেষ টিকাকরন

স্যন্দন প্রতিনিধি। আগরতলা। ২৮ এপ্রিল : ১ মে নয় ৫ মে রাজ্যে হবে বিশেষ টিকাকরন কর্মসূচি। আগামী ১ মে থেকে সারা দেশে টিকাকরন শুরু হলে ও রাজ্যে সে দিন থেকে শুরু হচ্ছে না টিকাকরন।  জানিয়েছেন এন এইচএমের মিশন অধিকর্তা। বর্হিরাজ্যে যারা কোভ্যাক্সিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন তাদের দেওয়া হবে দ্বিতীয় ডোজ। তার জন্য টিকাকরন কর্মসুচি।

এমনিতে  রাজ্যে টিকাকরনে সফলতা রয়েছে । তৃতীয় পর্যায়ের টিকাকরন কর্মসুচি সফল করতে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে রাজ্য। বুধবার এনএইচএমের মিশন ডিরেক্টর সিদ্ধার্থ শিব জয়সোয়াল এক সাংবাদিক সম্মেলনে জানান,রাজ্যের ৯৪৮ টি টিকাদান কেন্দ্রে টিকাকরন চলছে। নির্বাচন কমিশনের দেওয়া তথ্য অনুসারে রাজ্যে ১৮ থেকে ৪৪ বছর বয়সের নাগরিক আছেন ১৬ লক্ষ। টিকাকরনের জন্য রাজ্যে কোভিশিল্ড পর্যাপ্ত পরিমানে রয়েছে। আরো ভ্যাকসিন আনা হবে বলে জানান মিশন ডিরেক্টর। সারা দেশের সাথে রাজ্যেও গত ১৬ জানুয়ারি থেকে টিকাকরন কর্মসুচি শুরু হয়। রাজ্যের মোট জনসংখ্যার ৮.৩৯ লক্ষ মানুষ করোনার প্রথম ডোজ নিয়েছেন। সারা দেশে টিকাকরনের ক্ষেত্রে রাজ্যের সফলতা তিনি তুলে ধরেন। যেখানে সারা দেশে যেখানে মোট জনসংখ্যার ৬ শতাংশ মানুষ  টিকাকরন করেছেন সেখানে রাজ্যে ২৪ শতাংশ মানুষ টিকা নিয়েছেন।

খুব অল্প সময়ে ৯৪.৫ শতাংশ স্বাস্থ্য কর্মী ও ৯৫.৫ শতাংশ প্রথম সারির করোনা যোদ্ধারা টিকা নিয়েছেন বলে জানান জয়সোয়াল। ১৬ জানুয়ারি থেকে টিকাকরন শুরু হলেও ১৩ ফেব্রুয়ারী থেকে স্বাস্থ্য কর্মীদের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরু হয়। ৪৫ হাজার ২৭০ জন স্বাস্থ্য কর্মীকে দেওয়া হয়েছে করোনার প্রথম ডোজ। আর ৩৭ হাজার ৭৮৬ জন স্বাস্থ্য কর্মীকে দেওয়া হয়েছে করোনার দ্বিতীয় ডোজ। এক্ষেত্রেও রয়েছে সফলতা। ৬ মার্চ থেকে শুরু হয় করোনার প্রথম সারির যোদ্ধাদের টিকাদান কর্মসূচি। ৬২ হাজার ৪২ জনকে দেওয়া হয়েছে প্রথম ডোজ। দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে ৫০ হাজার ৭৫ জনকে। ১ মার্চ থেকে ৬০ উর্ধ্ব প্রবীন নাগরিক ও ১ এপ্রিল থেকে শুরু হয় ৪৫ উর্ধ্ব নাগরিকদের টিকাদান কর্মসূচি। ৩ লক্ষ ৩৪ হাজার ৮১ জন প্রবীন নাগরিক পেয়েছেন ভ্যাকসিন।৪ লক্ষ ২৮ হাজার ৮৭৩ জন ৪৫ উর্ধ্ব মানুষ পেয়েছেন টিকা। এদিকে কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়ে দিয়েছে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে রাজ্যগুলোকে বিনা পয়সায় কোভিড টিকা সরবরাহ করা হবে।

 বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে ১৮ বছরের উপরের সকলের কোভিডের টিকা দেওয়ার নিবন্ধন প্রক্রিয়া। এগুলি পরবর্তী মাসের প্রথম থেকে শুরু হওয়া কোভিড ভ্যাকসিনেশন ড্রাইভের তৃতীয় পর্যায়ে তাদের টিকা দেওয়া হবে।  যারা যোগ্য তারা কো-উইন পোর্টালে - cowin.gov.in এ নিবন্ধন করতে পারবেন। এই পর্যায়ে, কেন্দ্রীয় সরকারের টিকা কেন্দ্রগুলি স্বাস্থ্যসেবা কর্মী, ফ্রন্ট লাইন কর্মী এবং ৪৫ বছরের উপরে বয়সের সকলের জন্য যোগ্য ব্যক্তিদের বিনা মূল্যে এই টিকা চলবে।