স্ট্যান্ডআপ ইন্ডিয়া স্কিমের মেয়াদ বেড়েছে ২০২৫ সাল পর্যন্ত, ১,১৬,২৬৬ জন ২৬২০৪.২৯ কোটি টাকা ঋণ পেয়েছেন : কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্ৰতিমা

নয়াদিল্লি, ২০ জুলাই (হি.স.) : স্ট্যান্ডআপ ইন্ডিয়া স্কিমের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। ২০২৫ সাল পর্যন্ত এই স্কিমের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। আজ মঙ্গলবার লোকসভায় লিখিত প্রশ্নের জবাবে এই তথ্য দিয়েছেন কেন্দ্রীয় সামাজিক ন্যায় কল্যাণ এবং ক্ষমতায়ণ দফতরের প্রতিমন্ত্রী প্রতিমা ভৌমিক। তিনি জানান, ২০১৬ সালের ৫ এপ্রিল স্ট্যান্ডআপ ইন্ডিয়া স্কিম কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রকের আর্থিক পরিষেবা বিভাগ চালু করেছিল। প্রধানমন্ত্রী এই স্কিমের সূচনা করেছিলেন। এখন এই স্কিমের মেয়াদ ২০২৫ সাল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

তিনি বলেন, এই স্কিমের মূল লক্ষ্য তফশিলি জাতি অথবা তফশিলি জনজাতি অংশের একজন এবং একজন মহিলা ঋণ গ্রহীতাকে ১০ লক্ষ থেকে ১ কোটি টাকা ঋণ দিয়ে সহায়তা করা হবে। মূলত, জৈব পদ্ধতিতে উৎপাদন কেন্দ্র, পরিষেবা কেন্দ্র অথবা বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে স্বাবলম্বী হওয়ার উদ্দেশ্যেই তাঁদের ঋণ প্রদান করা হবে। তিনি জানান, এই স্কিম শুরু হওয়ার পর থেকে চলতি বছরের ২৮ জুন পর্যন্ত ১,১৬,২৬৬ জনকে ২৬২০৪.২৯ কোটি টাকা ঋণ দেওয়া হয়েছে।

সাথে তিনি যোগ করেন, ২০২১-২২ অর্থ বছরের বাজেট ভাষণে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন, ঋণ নেওয়ার ক্ষেত্রে মার্জিন মানি ২৫ শতাংশ পর্যন্ত থেকে ১৫ শতাংশ পর্যন্ত কমানো হয়েছে। এছাড়া কৃষি ক্ষেত্রকে এই স্কিমে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এর অতিরিক্ত কোনও বদল আনা হয়নি এই স্কিমে। তিনি জানান, কেন্দ্রীয় সরকার এই স্কিমে ঋণ দিচ্ছে না। নথিভুক্ত বাণিজ্যিক ব্যাঙ্ক এই ঋণ প্রদান করছে। এক্ষেত্রে ঋণ প্রদানে বাণিজ্যিক স্তর, নীতি এবং আরবিআই-এর নির্দেশিকা মেনে চলা হচ্ছে। অবশ্য, কেন্দ্রীয় সরকার ২০১৬-১৭ এবং ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে ৫০০ কোটি এবং ২০২০-২১ অর্থ বছরে ১০০ কোটি টাকা কর্পাস তহবিল হিসেবে স্ট্যান্ডআপ ইন্ডিয়া স্কিমের জন্য বরাদ্দ করেছে।কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আরও জানান, এই স্কিমের সুযোগ সুবিধা পাওয়ার জন্য অনলাইনে আবেদনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এছাড়া, ঋণ নেওয়ার ক্ষেত্রে সরলীকরণ, প্রচার, আবেদনপত্র সরলীকরণ ব্যবস্থা কেন্দ্র ও রাজ্য উভয়েই মিলিতভাবে ভাগ করে নিচ্ছে।