শ্লীলতাহানির দায়ে গ্রেপ্তার সিপিএম নেতা

স্যন্দন প্রতিনিধি। আগরতলা। ৪ মে। এক মহিলাকে শ্লীলতাহানি করার দায়ে আগরতলা বাধারঘাটের এক সিপিএম নেতাকে গ্রেপ্তার করলো পুলিশ। বিমল দেব নামে পড়ন্ত বেলার এই নেতার বিরুদ্ধে রয়েছে এ ধরনের অনেক অভিযোগ।বাম আমলেও এরকম একাধিক ঘটনার সাথে যুক্ত ছিলেন এই নেতা। তখন বাম সরকার ক্ষমতায় থাকায় পার পেয়ে যান তিনি।

এবার এলাকার এক মহিলাকে শ্লীলতাহানি করার অপরাধে আমতলী থানার পুলিশ তাকে আটক করে।বাধারঘাট মাতৃ পল্লী এলাকায় বসবাসরত এক মহিলার বাড়িতে মঙ্গলবার  সকালে তার একাকিত্বের সুযোগে একই এলাকার বাসিন্দা অভিযুক্ত বিমল দেব (বয়স ৬৬)মাতৃপল্লীর ঐ মহিলার ঘরে ঢুকে প্রথমে ৫০০ টাকা দিতে চায়। কিন্তু ঐ মহিলা সেই টাকা নিতে অস্বীকার করায় অভিযুক্ত বিমল দেব ঐ মহিলার সাথে জোরজবস্তি শুরু করে, এমনকি তার গায়ের উড়না ছিড়ে ফেলে।

পরবর্তী সময়ে ঐমহিলার চিৎকারে এলাকাবাসীরা ছুটে এলে অভিযুক্ত বিমল দেব পালানোর চেষ্টা করে। পরবর্তী সময়ে আমতলী থানায় খবর দিলে পুলিশ ছুটে এসে অভিযুক্ত বিমল দেব কে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়।পরবর্তী সময়ে ঐমহিলার পক্ষ থেকে বাধারঘাট মাতৃ পল্লী এলাকাবাসীরা থানায় গিয়ে ডেপুটেশন প্রদান করেন। অভিযুক্ত বিমল দেব এর আগেও অনেকের সাথে এরকম কাজ করতে গিয়ে ধরা পড়ে বলে অভিযোগ।আবার মাতৃপল্লী এলাকার একাংশের বক্তব্য হল, বিমল দেবকে ফাঁসিয়ে দেওয়া হয়েছে।সরকার পরিবর্তনের পর তার উপর অনেক হামলা হয়েছে। এবার তার কাছ থেকে টাকা পয়সা নিতে তাকে চক্রান্ত করে ফাসিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। মঙ্গলবার সকালে প্রাতভ্রমনে বেরিয়ে বিমল দেব ঐ মহিলার সাথে কথা বলেন। তাকে তার বাড়িতে গিয়ে চা খেতে ও বলেন তিনি। এতটুকুই। মহিলা বাড়ি ফিরে গিয়ে এলাকার বিজেপি নেতাদের পরামর্শ মেনে আমতলি থানায় মামলা দায়ের করে। মামলার বয়ান মাতৃপল্লী এলাকার এক বিজেপি নেতা লিখে দিয়েছে বলে খবর। ঐ নেতা আবার কোর্টের দলিল লেখক। বিকেলে ঐ নেতার নেতৃত্বে একটি মিছিল হয়। মিছিল থেকে বিমল দেবের শাস্তি চেয়ে শ্লোগান উঠে।