রাজস্থানকে উড়িয়ে টানা দ্বিতীয় জয় কিং খানের নাইটদের

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক,৩০ সেপ্টেম্বর:- মাঠে নাইট কর্ণধার শাহরুখ খানের উপস্থিতি।  আর তাতেই দুবাই জুড়ে স্লোগান - করব, লড়ব, জিতব রে .... শিবম মাভি, কমলেশ নাগরকোটি, প্যাট কামিন্সরা মাটিতে নামিয়ে আনলেন স্মিথ, আর্চারদের। আইপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে ম্যাচ জিতে নাইটদের বিরুদ্ধে নেমেছিল রাজস্থান রয়্যালস।

 সেই রাজস্থান রয়্যালসকে ১৭৫ রানের টার্গেট দিয়েছিল কেকেআর। কিন্তু ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৩৭ রান তোলে রাজস্থান। ৩৭ রানে জিতল কেকেআর। টানা দ্বিতীয় ম্যাচে জয় পেল কিং খানের দল।১৭৫ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে শুরুতেই রাজস্থান শিবিরে ধাক্কা দিলেন প্যাট কামিন্স। স্টিভ স্মিথকে ৩ রানে ফেরালেন অজি পেসার। এরপর সঞ্জু স্যামসন (৮) আর জোস বাটলারকে (২১) ডাগআউটে ফেরত্ পাঠান শিবম মাভি। এরপর রবিন উথাপ্পা (২) আর  রিয়ান পরাগকে (১) ফেরালেন কমলেশ নাগরকোটি। স্কোরবোর্ডে রাজস্থানের ৫০ রান ওঠার আগেই  টপ অর্ডার আর মিডল অর্ডারে ধস নামে। মাভি, নাগরকোটি, কামিন্সরা যে কাজটা শুরু করেছিলেন সেটাই শেষ করলেন বরুণ চক্রবর্তী, সুনীল নারিন, কুলদীপ যাদবরা। তবে শেষ দিকে চেষ্টা করে যান টম কুরান। রাজস্থানের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেন তিনিই। ৫৪ রানে অপরাজিত থাকেন কুরান।  কেকেআরের হয়ে ২টি করে উইকেট নিলেন শিবম মাভি, কমলেশ নাগরকোটি, বরুণ চক্রবর্তী।

দুবাইয়ে টস জিতে প্রথমে KKR-কে ব্যাট করতে পাঠান রাজস্থান রয়্যালস অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। ওপেনিংয়ে এদিনও ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে পারলেন না সুনীল নারিন। ১৪ বলে ১৫ রান করে ফিরলেন তিনি। শুভমান গিল ভালো শুরু করলেও ৪৭ রানে থামলেন। আর্চারের বলে তাঁর হাতেই ধরা দিলেন শুভমান। নীতিশ রানা ২২ এবং দীনেশ কার্তিক ১ রান করেন। যখন রাসেল ঝড়ের ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছিল ঠিক তখনই অঙ্কিত রাজপুত তুলে নিলেন রাসেলকে। ১৪ বলে ২৪ রান করলেন তিনি। কামিন্স করেন ১২ রান। শেষ দিকে ব্যাট হাতে ঝোড়ো ব্যাটিং করেন ইয়ন মরগ্যান। ২৩ বলে ৩৪ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেট হারিয়ে ১৭৪ রান তোলে কেকেআর। রাজস্থানের হয়ে জোফ্রা আর্চার দুটি উইকেট নেন। একটি করে উইকেট নেন কুরান, উনাদকাট, রাজপুত এবং তেওয়াটিয়া।