যুক্তরাষ্ট্রে তুষার ঝড়ে জনজীবন বিপর্যস্ত

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, ১৭ ডিসেম্বর:যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে শক্তিশালী তুষার ঝড়ে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। দুর্যোগের মুখে পড়েছে ৬ কোটির বেশি মানুষ। ১৪ রাজ্যে জারি করা হয়েছে সতর্কতা। স্থানীয় সময় বুধবার সন্ধ্যা থেকেই ঘণ্টায় ২ ইঞ্চি পর্যন্ত বরফের স্তুপ জমতে শুরু করেছে রাস্তায়। লাগাতার তুষারপাতে ইতোমধ্যে বেশ কিছু দুর্ঘটনায় দুইজন মারা গেছে এবং কয়েকজন আহতও হয়েছে।নিউ ইয়র্ক সিটি এবং কেনাটিকেটের কিছু অংশে বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যার মধ্যেই ১৪ ইঞ্চি বরফের স্তরে ঢাকা পড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।দক্ষিণ নিউ ইয়র্ক ঢেকে যেতে পারে ১৬ ইঞ্চি বরফের স্তুপে। এক ফুট বা তার বেশি বরফ পড়লেই তা হবে চার বছরের মধ্যে রাজ্যটিতে সবচেয়ে বেশি তুষারপাত।

নিউ ইয়র্কের সেন্ট্রাল পার্কে বুধবার সন্ধ্যায়ই প্রায় ২.৬ ইঞ্চি তুষারপাত হয়েছে, ফিলাডেলফিয়ায় হয়েছে ৫ দশমিক ৭ ইঞ্চি তুষারপাত।ওদিকে, ওয়াশিংটন ডিসিতে বৃহস্পতিবার রাতে ২ ইঞ্চি এবং বোস্টনে বুধবার রাত থেকে শুরু করে বৃহস্পতিবারও ৯-১৩ ইঞ্চি এবং তারও বেশি তুষরাপাত হওয়ার পূর্বাভাস আছে বলে জানিয়েছে সিএনএন। পেনসিলভেইনিয়ায় দুই ফুট পর্যন্ত বরফ জমার আশঙ্কা করা হচ্ছে।পেনসিলভেনিয়ার রাস্তায় বরফের স্তরের কারণে গড়ি দুর্ঘটনায় দুইজন মারা গেছে এবং আরও ৩০ থেকে ৬০ টি গাড়ি দুর্ঘটনায় কয়েকজন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এছাড়া, নিউ ইয়র্ক সিটিতেও বরফ পিচ্ছিল রাস্তায় গাড়িতে গাড়িতে সংঘর্ষে ৬ জন আহত হয়েছে।বুধ এবং বৃহস্পতিবারের ১৩শ’র বেশি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। নিউ ইয়র্ক সিটির মেট্রো এলাকাসহ আরও কিছু গণপরিবহন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বিপজ্জনক পরিস্থিতির মধ্যে অধিবাসীদেরকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে এবং গাড়ি চালাতে মানা করেছে কর্তৃপক্ষ।নিউ ইয়র্ক, পেনসিলভেইনিয়া কেনাটিকেট এবং মেরিল্যান্ডসহ বেশ কয়েকটি রাজ্যে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা কেন্দ্রও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।