মেসির চলে যাওয়া নিয়ে হতাশা নেই আগুয়েরোর

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, ১১ সেপ্টেম্বর: জাতীয় দলের পর লিওনেল মেসির সঙ্গে একই ক্লাবেও মাঠ মাতানোর আশায় ছিলেন সের্হিও আগুয়েরো; কিন্তু কঠিন বাস্তবতায় তা সম্ভব হয়নি। সেজন্য অবশ্য তেমন কোনো খারাপ লাগা নেই আগুয়েরোর। কাম্প নউয়ে মেসির থাকা-না থাকার সঙ্গে নিজের চুক্তির কোনো সম্পর্ক নেই বলেও জানালেন এই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড।

ম্যানচেস্টার সিটিতে চুক্তির মেয়াদ শেষ করে গত জুলাইয়ে ফ্রি ট্রান্সফারে বার্সেলোনায় যোগ দেন আগুয়েরো। সেই সময় কাতালান ক্লাবটির সঙ্গে মেসির চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও তার সেখানে থেকে যাওয়ার জোর সম্ভাবনা ছিল। কিন্তু আর্থিক দুর্গতি ও লা লিগার ফেয়ার প্লের কারণে তাকে ধরে রাখতে পারেনি বার্সেলোনা।শেষ হয়ে যায় মেসির সঙ্গে আগুয়েরোর একই ক্লাবে খেলার সম্ভাবনা। তবে বার্সেলোনায় যোগ দেওয়ার নিজের সিদ্ধান্তে খুশি আগুয়েরো, এমনকি বেতন কমে যাওয়ার পরও। সম্প্রতি স্প্যানিশ রেডিও আরএসি-১ কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কোনো আফসোস নেই বলে জানান তিনি।

“কোনো সন্দেহ নেই সুযোগ পেলে আবারও আমি বার্সাতেই যোগ দিব। কেবল ক্লাবটির নামের কারণেই এখানে আসতে অনেকে অর্থ ছাড় দিতে প্রস্তুত।”“যখন আমরা বার্সার সঙ্গে কথা বলি, তখনই তাদের অর্থিক অবস্থা সম্পর্কে জানতাম। তবে আমি আমার এজেন্টকে বলেছিলাম, অর্থ নিয়ে ভাবি না। শুধু চেয়েছিলাম বার্সায় যোগ দিতে, এমনকি সিটির চেয়ে আয় কম হলেও।”সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে মেসির সঙ্গে তার আগেই কথা হয়েছে বলে জানালেন আগুয়েরো। গণমাধ্যমে খবর, তার চুক্তিতে একটা শর্ত ছিল যে মেসি চলে গেলে তিনিও দল ছাড়তে পারবেন। এসব ভিত্তিহীন বলে জানালেন ৩৩ বছর বয়সী এই ফুটবলার।“কোপা আমেরিকার সময় সে আমাকে বলেছিল, মনে হচ্ছে চুক্তি প্রায় সম্পন্ন, কিন্তু…। যখন আমরা ফিরলাম তখন সে আমাকে বলল, তারা এখনও চুক্তির ব্যাপারে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু এরপর আসে সেই ঐতিহাসিক বৃহস্পতিবার, সবার মতো আমিও ধাক্কা খেয়েছিলাম।”“কেউ একজন একটা বিষয় তৈরি করেছে যে মেসি চলে গেলে আমারও যাওয়ার একটা শর্ত চুক্তিতে ছিল। আসলে যা হয়েছিল তা হলো, যেদিন আমাকে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্লাবের পরিচয় করিয়ে দেওয়ার কথা ছিল তখন আমি ছিলাম চোটাক্রান্ত। আর ওই সময়টা মেসি চলে যাওয়ার কিছু দিন পরেই।”