মুম্বইয়ের ধর্ষিতা যুবতীর মৃত্যু, পুলিশের জালে একজন অভিযুক্ত

মুম্বই, ১১ সেপ্টেম্বর (হি.স.): বেঁচে থাকার অনেক ইচ্ছে ছিল, কিন্তু পাশবিক অত্যাচার অকালেই কেড়ে নিল বছর ৩০-এর যুবতীর প্রাণ। দীর্ঘ ৩৩ ঘন্টার লড়াই শেষে ঘাটকোপারের রাজাওয়াড়ি হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে মুম্বইয়ের নির্যাতিতার। শুক্রবার ভোররাতে মুম্বই পুলিশের কন্ট্রোল রুমে একটি ফোন আসে।

জানানো হয়, সাকিনাকা এলাকার খাইরানি রোডে রক্তাক্ত অবস্থায় এক মহিলা পড়ে রয়েছেন। পুলিশ কর্মীরা সেখানে গিয়ে দেখেন টেম্পোর ভিতরে রক্তাক্ত অবস্থা পড়ে রয়েছেন ওই যুবতী। তড়িঘড়ি তাঁকে উদ্ধার করে পাঠানো হয় রাজাওয়াড়ি হাসপাতালে। হাসপাতালের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ওই যুবতী। নৃশংস অত্যাচার চালানো হয়েছে তাঁর উপর। যৌনাঙ্গে রড ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ। এরপর প্রায় ৩৩ ঘণ্টা ধরে হাসপাতালের আইসিইউ-তে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছিলেন নির্যাতিতা।

চিকিৎসকরাও তাঁকে বাঁচানোর জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। শনিবার হাসপাতালেই মারা যান তিনি।এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মোহন চৌহান (৪৫) নামে এক অভিযুক্তকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিস। তার বিরুদ্ধে খুন এবং ধর্ষণের অভিযোগও দায়ের করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশের অনুমান, এই ঘটনায় আরও কয়েকজন জড়িত থাকতে পারে। বিষয়টি জানার জন্য ধৃতকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। এই ঘটনায় জাতীয় মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন রেখা শর্মা বলেছেন, "মাত্র একজন অভিযুক্ত গ্রেফতার হয়েছে। জাতীয় মহিলা কমিশন উদ্বিগ্ন।"