ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা স্থগিত ম্যাচ: পর্যালোচনার পর ফিফার সিদ্ধান্ত

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, ৭ সেপ্টেম্বর:এরই মধ্যে মাঝ পথে সুপার ক্লাসিকো স্থগিত নিয়ে প্রতিবেদন পেয়েছে ফিফা। ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার মধ্যে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ওই ম্যাচের প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে সম্ভাব্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্তা সংস্থা। এক বিবৃতিতে সোমবার বিষয়টি জানিয়ে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে ফিফা।সাও পাওলোর করিন্থিয়ান্স অ্যারেনার বিশ্বকাপ বাছাইয়ে দুই চির প্রতিদ্বন্দ্বীর মুখোমুখি লড়াইটি রোববার নির্ধারিত সময়েই শুরু হয়েছিল। কিন্তু পাঁচ মিনিট পরই ব্রাজিলের স্বাস্থ্য বিভাগের হস্তক্ষেপে শেষ পর্যন্ত স্থগিত হয়ে যায়।

আগে থেকেই আর্জেন্টিনার চার খেলোয়াড় কোয়ারেন্টিনের নিয়ম ভেঙেছে বলে গণমাধ্যমে খবর আসে। ম্যাচটি শুরুর ঘণ্টাখানেক আগেও রয়টার্সসহ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে জানানো হয়, ওই চার জনকে হোটেলে আইসোলেশনে থাকতে বলেছে স্থানীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। তবে আর্জেন্টিনার একাদশে দেখা যায় তাদের তিন জন- গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্তিনেস, ডিফেন্ডার ক্রিস্তিয়ান রোমেরো ও মিডফিল্ডার জিওভানি লো সেলসো। ম্যাচের পঞ্চম মিনিটে মাঠে প্রবেশ করেন স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা। তাদের অভিযোগের পর মাঠ ছেড়ে ড্রেসিং রুমে চলে যায় সফরকারীরা।

ব্রাজিলিয়ান হেলথ রেগুলেটরি এজেন্সির (আনভিসা) জানিয়েছিল, কিছু ব্যতিক্রম ছাড়া অ-ব্রাজিলিয়ানদের জন্য ব্রিটেন, উত্তর আয়ারল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা বা ভারত থেকে ব্রাজিলে প্রবেশ নিষিদ্ধ। যাদের ছাড় দেওয়া হয়েছে, তাদের অবশ্যই (ব্রাজিলে) আসার সময় কর্তৃপক্ষকে অবগত করতে হবে এবং ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।তবে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে আর্জেন্টিনা দলকে কিছু জানানো হয়নি বলে দাবি করেন আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনি। ঘটনার শুরুতে দূর থেকে যখন কিছু পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছিল না তখন টিভির পর্দায় ভেসে আসে মেসির কণ্ঠ। তিনিও ঠিক একই কথা বলেন।“আমার কথা শুনুন, আমরা এখানে (ব্রাজিলে) তিন দিন ধরে আছি। তারা (স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রতিনিধি) এখানে আসার জন্য কী ম্যাচ শুরুর অপেক্ষায় ছিলেন? তারা আগে কেন আমাদের সতর্ক করেননি।”ম্যাচটি স্থগিত হওয়ার ঘন্টাখানেক পর ব্রাজিল ছেড়ে আর্জেন্টিনার উদ্দ্যেশ্যে রওনা দেয় কোপা আমেরিকার বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।