বেসরকারি স্কুল কর্তৃপক্ষের সাথে বৈঠক শিক্ষামন্ত্রীর

স্যন্দন প্রতিনিধি। আগরতলা। ১০ জুন : ১৭ টি বেসরকারি স্কুল কর্তৃপক্ষকে নিয়ে বৃহস্পতিবার শিক্ষাভবনে বৈঠক করলেন শিক্ষামন্ত্রী রতন লাল নাথ। কারণ বেসরকারি বেশ কিছু স্কুল বেআইনিভাবে ছাত্র-ছাত্রীদের এবং অভিভাবক মহলে পকেটে কাটতে বিগত দিনে প্রত্যক্ষ করা গেছে। তাই সেইসব স্কুল কর্তৃপক্ষ যাতে করোনা পরিস্থিতিতে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করতে না পারে তার জন্য বৈঠক করলেন শিক্ষামন্ত্রী।

 দীর্ঘক্ষন বৈঠকের পর শিক্ষামন্ত্রী জানান, বেসরকারি স্কুল কর্তৃপক্ষের সাথে বৈঠক করে জানতে চাওয়া হয়েছে বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে বেসরকারি স্কুলগুলি ছাত্র-ছাত্রীদের এবং অভিভাবকদের কাছ থেকে কি ধরনের স্কুল ফি আদায় করছে। আগামী শুক্রবারের মধ্যে সমস্ত রিপোর্ট যাতে শিক্ষা দপ্তরের কাছে জমা দেয় তার জন্য আহ্বান করা হয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষদের। এবং স্কুল কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে তারা যাতে ছাত্র-ছাত্রীদের ট্রান্সপোর্ট ফি বর্তমান সময়ে ৬০ শতাংশ হ্রাস করা হয়। যেহেতু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলি বন্ধ তাই কালচারাল অনুষ্ঠানগুলি আপাতত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলিতে বন্ধ রয়েছে। তাই কালচারাল অনুষ্ঠানের জন্য যাতে কোনো অর্থ বর্তমানে না নেওয়া হয় তার জন্য আহ্বান করা হয়েছে। এছাড়াও অপ্রয়োজনীয়' কোন ফ্রি যাতে ছাত্র-ছাত্রী এবং অভিভাবকদের কাছ থেকে গ্রহণ না করা হয়।

 বিগত বছরে করোনা পরিস্থিতিতে ছাত্র-ছাত্রীদের বার্ষিক ফি এবং টিউশন ফি কমিয়ে যত করা হয়েছে তা যাতে আপাতত বজায় রাখে সে বিষয়ে অবগত করা হয়েছে। যাতে ছাত্রছাত্রীরা অভিভাবকরা কোন সমস্যা সম্মুখীন না হয় বলে জানান শিক্ষা মন্ত্রী রতন লাল নাথ। কারন রাজ্যে শিক্ষাক্ষেত্রে এগিয়ে যেতে বেসরকারি স্কুল গুলির ভূমিকা রয়েছে। বর্তমান সরকারের মূল লক্ষ্য হলো গুণগত শিক্ষা প্রদান করা। সেদিকে গুরুত্ব দিয়ে সরকার একাধিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করছে বলে জানান তিনি। এদিন বৈঠকে অক্সিলিয়াম স্কুল, ডন বস স্কুল, ভারতীয় বিদ্যাভবন, শ্রীকৃষ্ণ মিশন সহ বিভিন্ন স্কুল কর্তৃপক্ষ উপস্থিত ছিলেন। এখন দেখার বিষয় সংশ্লিষ্ট দপ্তরের মন্ত্রীর বৈঠক বাস্তবে কতটা সাফল্য নিয়ে আসে ছাত্র-ছাত্রী এবং অভিভাবকদের জন্য। নাকি সবটাই শিক্ষা ভবনের দেওয়ালে আবদ্ধ থাকবে। এদিন এছাড়া উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা দপ্তরের অধিকর্তা ইউ কে চাকমা সহ অন্যান্য আধিকারিকরা।