পেগাসাসের তদন্ত চাইল প্রদেশ কংগ্রেস

স্যন্দন প্রতিনিধি। আগরতলা। ২১ জুলাই : ইজরায়েলের সংস্থা এন এস ও বহু বছর ধরে বিভিন্ন রাষ্ট্রকে গুপ্তচর সফটওয়্যার বিক্রি করে আসছে। এর মধ্যে গুপ্তচর সফটওয়্যারের মাধ্যমে ভারতবর্ষে প্রায় তিন শতাধিক বিরোধী দলের নেতৃত্ব, সাংবাদিক সহ অন্যান্যদের ট্যাপ করা হয়েছে। আর এই সফটওয়্যারটি শুধুমাত্র সরকারি সংস্থার কাছে বিক্রি হয় বলে জানা গেছে। ফ্রান্সের ফরেনসিক ল্যাবের মধ্য দিয়ে ভারতবর্ষের উপর এই গুপ্তচরের বিষয়টি উঠে এসেছে। বিশ্বের বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মিডিয়া এই কেলেঙ্কারি সামনে তুলে ধরেছে। এটার নাম দেওয়া হয়েছে পেগাসাস প্রজেক্ট। আই এর বিরুদ্ধে সরব হল প্রদেশ কংগ্রেস।

 প্রদেশ কংগ্রেসের অভিযোগ এই পেগাসাস প্রজেক্ট ইজরায়েল দেশ সরকারি সংস্থাগুলিকে প্রদান করে থাকে। এটা স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে ভারতবর্ষের বিজেপি সরকার পেগাসাস প্রজেক্ট ইজরায়েলের কাছ থেকে নিয়ে রাহুল গান্ধী সহ বিরোধী দলের বিভিন্ন নেতৃত্ব এবং দেশের বহু সাংবাদিকের গোপনীয় তথ্য হ্যাক করে জাতীয় নিরাপত্তা এবং সাংবিধানিক অধিকার কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে। বিজেপি সরকারের এ ধরনের দেশদ্রোহী কাজের জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করা হচ্ছে। পাশাপাশি দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে অভিযুক্ত করে জুডিশিয়াল তদন্তের দাবি তোলা হচ্ছে বলে বুধবার সাংবাদিক সম্মেলন করে দাবি জানান প্রদেশ কংগ্রেসের সদস্য মানিক দেব। তিনি বলেন, দেশি বিজেপি সরকারের এ ধরনের মানসিকতা এবং সংবিধান বিরোধী কাজের জন্য সর্বভারতীয় কংগ্রেস দলের পক্ষ থেকে বুধবার সাংবাদিক সম্মেলন করে সরকারের মানসিকতা দেশবাসীর সামনে তুলে ধরে প্রতিবাদ জানানো হচ্ছে।

এই গুপ্তচর সংস্থা দ্বারা রাহুল গান্ধী, দেশের নির্বাচন কমিশনার, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি, ১৮০ জন সাংবাদিক সহ সকলকে এই তালিকায় এনে ষড়যন্ত্র করছে সরকার। এর আওতায় আনা হয়েছে দেশের যেসব সাংবাদিকরা সরকারের জনবিরোধী নীতি মানুষের সামনে তুলে ধরেছে। তাদের ওপর এ ধরনের হস্তক্ষেপ করেছে সরকার। আর সরকার এই ধরনের গুপ্তচর হস্তক্ষেপ ২০১৯ সালের নির্বাচনের সময় থেকে চালে আসছে। বিষয়টি বর্তমানে বিভিন্ন সাংবাদ সংস্থার মাধ্যমে সামনে উঠে এসেছে। ফ্রান্সের ফরেনসিক ল্যাবের মধ্য দিয়ে এ গুপ্তচরের বিষয়টি উঠে এসেছে। সরকারি ধরনের মানসিকতা দেশবাসী এখন নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়েছে। প্রদেশ কংগ্রেসের পক্ষ থেকে যৌথ সংসদীয় পর্যালোচনার করার দাবি জানানো হচ্ছে বলে জানান তিনি। প্রদেশ কংগ্রেস এ বিষয়টি নিয়ে আগামী দিনে রাজভবন অভিযান করবে। রাজ্যপালের হাতে প্রতিবাদলিপি তুলে দিয়ে সরকারের তীব্র বিরোধিতা জানানো হবে। এ ধরনের কাজের উপযুক্ত বিচার চায় কংগ্রেস দল বলে জানান তিনি। এদিন আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে এছাড়া উপস্থিত ছিলেন প্রদেশ কংগ্রেসের সম্পাদক রাহুল সাহা, প্রাক্তন মন্ত্রী লক্ষ্মী নাগ সহ অন্যান্য নেতৃত্ব।