ধর্না মঞ্চে শামিল বরের মা-বাবা সহ চাকরিচ্যুত শিক্ষকরা

 

 

 

স্যন্দন প্রতিনিধি। আগরতলা। ১ মে : ২৬ এপ্রিল বিয়ে বাড়ির ঘটনায় জেলাশাসকের শাস্তির দাবি তোলে স্বদলীয় বিধায়ক আশিস দাসের পাশে দাঁড়ালেন নির্যাতিত বরের মা, বাবা সহ চাকরিচ্যুত ১০,৩২৩ -এর শিক্ষক-শিক্ষিকারা। শনিবার ছিল বিধায়কের ধর্ণা চতুর্থ দিন। এদিন সকাল থেকে সার্কিট হাউস গান্ধী মূর্তি পাদদেশে জেলাশাসক শৈলেশ কুমার যাদবের বরখাস্তের দাবিতে ধর্ণা শুরু হয়।

সে ধর্ণা এসে বসেন বরের মা-বাবা এবং চাকরিচ্যুতদের শিক্ষক বিজয় কৃষ্ণ সাহা সহ অন্যান্য শিক্ষকরা। চাকরিচ্যুত শিক্ষক বিজয় কৃষ্ণ সাহা বলেন, ২৬ এপ্রিল বিয়ে না হওয়ার জন্য যা যা করণীয়, তাই করলেন জেলাশাসক। মানুষকে শারীরিকভাবে নিগ্রহ করেছেন তিনি। অনুরূপভাবে জে এম সি ১০,৩২৩ সংগঠনের ৫২ দিনের গণ-অবস্থান কোনরকম নির্দেশ ছাড়াই ভেঙে দেওয়া হয়েছিল বলে জানান তিনি। মানিক্য কোট এবং গোলাপ বাগান বিয়ে বাড়িতে জেলাশাসকের অভাবনীয় ঘটনায় সনাতন হিন্দু ধর্মের উপর আঘাত এসেছে। এভাবে শরীরে আঘাত করার অধিকার জেলাশাসকের নেই। সুতরাং জেলাশাসক শৈলেশ কুমার যাদবকে বরখাস্ত করে দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবি জানান চাকরিচ্যুতদের শিক্ষক। পাশাপাশি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, যতক্ষণ না পর্যন্ত পশ্চিম জেলার জেলাশাসক শৈলেশ কুমার যাদবকে বরখাস্ত করা হবে, ততক্ষণ আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। প্রতিবাদী লোকের সমাগম বাড়বে বলে সরকারের উদ্দেশ্যে স্পষ্ট বার্তা দেন তিনি।