ড্রিমার ইমিগ্রেন্টদের’ পথ বন্ধ করে দিলেন যুক্তরাষ্ট্রের বিচারক

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, ১৭ জুলাই : ডিফারড অ্যাকশন ফর চাইল্ডহুড অ্যারাইভালস (ডিএসিএ) কর্মসূচিতে নতুন আবেদন আটকে দিয়েছেন টেক্সাসের একজন বিচারক।শুক্রবার ইউএস ডিস্ট্রিক্ট জজ অ্যান্ড্রু হ্যানেন এই নির্দেশ জারি করেন বলে রয়টার্স জানিয়েছে। ডিএসিএ কর্মসূচিতে যারা আবেদন করে যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসনের সুযোগ পান সাধারণত তাদের ‘ড্রিমার ইমিগ্রেন্টস’ বলা হয়। ২০১২ সালে সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার প্রশাসন এই অভিবাসন কর্মসূচি চালু করে।এই কর্মসূচির আওতায় যুক্তরাষ্ট্রে শিশু বয়সে যাদের আনা হয়েছিল, তারা প্রাপ্তবয়স্ক অবস্থায় দেশটি থেকে বহিষ্কার হওয়া এড়াতে পারে।বিচারক হ্যানেন তার আদেশে ওইসব রাজ্যের পক্ষে অবস্থান নেন যারা এই কর্মসূচির সমাপ্তি ঘোষণার জন্য মামলা চালাচ্ছে। তাদের বক্তব্য হচ্ছে, ওবামা প্রশাসনের এই কর্মসূচি বেআইনিভাবে সৃষ্টি করা হয়েছে।তবে যাদের আবেদন এরইমধ্যে বিবেচনাধীন রয়েছে বিচারক হ্যানেনের আদেশ তাদের ওপর কোনো প্রভাব ফেলবে না।

আদেশে হ্যানেন বলেন, ডিএসিএ কর্মসূচি যখন চালু করা হয় তখনই সেটা অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ প্রসিডিউর অ্যাক্ট (এপিএ) লঙ্ঘন করে। কিন্তু যেহেতু এরইমধ্যে অনেক বেশি সংখ্যক, প্রায় সাড়ে ছয় লাখ আবেদন বিবেচনাধীন, তাই তার রুলিং ওইসব আবেদনকারীদের জন্য স্থগিত অবস্থায় থাকবে যতক্ষণ পর্যন্ত আদালত এ বিষয়ে আরও রুলিং না দিচ্ছে।বিচারক আরও বলেন, “বিষয়টি আরও স্পষ্ট করার জন্য জানাচ্ছি, এই আদেশের কারণে ডিএসিএপ্রাপ্ত কারও বিরুদ্ধে সরকারকে কোনো বহিষ্কার বা ফৌজদারি পদক্ষেপ নিতে হবে না।”যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন দায়িত্বগ্রহণের প্রথম দিনই জানিয়েছিলেন, ডিএসিএপ্রাপ্তদের জন্য নাগরিকত্ব লাভের একটি স্থায়ী পথ সৃষ্টি করতে চান তিনি।ডিএসিএ প্রণয়নের সময় ছিলেন ভাইস প্রেসিডেন্ট বাইডেন।সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় থাকার সময় এই কর্মসূচি বাতিলেরও উদ্যোগ নিলেও যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আদালতে সেটি আটকে দিয়েছিল।