টেক্সাসে হিমশীতল আবহাওয়ার মধ্যে বিদ্যুতের বিল লাগাম ছাড়া

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, ২৩ফেব্রুয়ারি: যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে গত সপ্তাহের হিমশীতল আবহাওয়ার ম বিদ্যুতের দাম নতুন করে নির্ধারণের পর লাগাম ছাড়া বিল নিয়ে বিপাকে পড়েছেন রাজ্যটির দুর্যোগকবলিত বাসিন্দারা।মাত্র কয়েকদিনের ব্যবহারেই তাদের বিদ্যুৎ বিল ১৬ হাজার ডলারের বেশি এসেছে বলে জানিয়েছেন বেশ কয়েকজন বাসিন্দা।এমনিতে টেক্সাসের বাসিন্দারা শীতকালের মৃদু আবহওয়া উপভোগ করলেও গত কিছুদিন ধরে রাজ্যটির অধিকাংশ এলাকা তুষারে ঢেকে আছে। তাপমাত্রা ৩০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে কমে গিয়ে মাইনাস ১৮ সেলসিয়াসে দাঁড়িয়েছিল।এখন টেক্সাস তাপমাত্রার ওই হিমশীতল অবস্থা থেকে বের হয়ে আসছে। তারপরও সাপ্লাইয়ের পানি দূষিত হয়ে থাকতে পারে শঙ্কায় বহু বাসিন্দা পানি ফুটিয়ে পান করছেন।   

যুক্তরাষ্ট্রের যে অল্প কয়েকটি রাজ্যে স্বাধীন বিদ্যুৎ গ্রিড আছে টেক্সাস তাদের অন্যতম। তাই যখন রাজ্যটির ওপর দিয়ে তীব্র শৈত্য প্রবাহ বয়ে যায় এবং চাহিদার তুলনায় বিদ্যুৎ সরবরাহ কমে যায় তখন তারা প্রতিবেশী রাজ্যগুলো থেকে কোনো সহায়তা নিতে পারেনি।এর ফলে টেক্সাসের পাবলিক ইউটিলিটি কমিশন গত সোমবার অনুষ্ঠিত এক জরুরি বৈঠকে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়।বিবিসি জানিয়েছে, যেসব গ্রাহকরা বিদ্যুৎ ব্যবহারের ফিক্সড-রেট পেমেন্ট প্ল্যানের আওতায় আছেন এ পরিবর্তন তাদের ক্ষেত্রে কোনো প্রভাব ফেলেনি, কিন্তু যারা ভ্যারিয়েবল-রেট ট্যারিফের আওতায় ছিলেন তারা উচ্চ বিদ্যুৎ বিলের মুখোমুখি হয়ে বিপাকে পড়েছেন।আবহওয়া পরিস্থিতি যখন স্বাভাবিক ছিল তখন স্বল্প মেয়াদের জন্য ভ্যারিয়েবল-রেট ট্যারিফই সাশ্রয়ী ছিল।এ পরিস্থিতিতে রাজ্যকেই এসব বাড়তি বিল বহন করা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন টেক্সাসের সবচেয়ে বড় শহর হিউস্টনের মেয়র সিলভেস্টার টার্নার।

সিবিএস নিউজকে তিনি বলেন, সিস্টেম পরিস্থিতি সামলাতে পারেনি, এটা এখানকার বাসিন্দাদের দোষ নয় আর এ কারণে বিশাল এসব বিল টেক্সাস রাজ্যেরই বহন করা উচিত।রাজ্য কর্তৃপক্ষকে এসব বাড়তি বিল পরিশোধ করার আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি।শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাওয়ার সময়টিতে টেক্সাসের ৪০ লাখেরও বেশি বাসিন্দা কয়েকদিন বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় ছিলেন। এখন রাজ্যটির অধিকাংশ এলাকায় বিদ্যুৎ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে এলেও রোববার স্থানীয় সময় বিকাল পর্যন্ত প্রায় ৩০ হাজার বাসিন্দা বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় ছিলেন। সংকটের জন্য আগাম প্রস্তুতি না নেওয়ায় ইলেকট্রিক রিলায়াবিলিটি কাউন্সিল অব টেক্সাস সমালোচনার মুখে পড়েছে। এই কাউন্সিলই রাজ্যটির অধিকাংশ বিদ্যুৎ ব্যবস্থার তদারকি করে থাকে।যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কয়েকটি দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্যজুড়ে বয়ে যাওয়া এই অস্বাভাবিক শৈত্য প্রবাহে অন্তত ৭০ জনের মৃত্যু হয়।