টিকা উৎপাদন ও সরবরাহ বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি এপেক নেতাদের

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, ১৭ জুলাই : যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, রাশিয়ার ভ্লাদিমির পুতিন ও চীনের শি জিনপিংসহ এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের অর্থনৈতিক জোটের (এপেক)শীর্ষ নেতারা মহামারী মোকাবেলায় জোরদার লড়াই এবং কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন উৎপাদন ও সরবরাহ বাড়াতে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। 

শুক্রবার এক ভার্চুয়াল বৈঠকে তারা এ প্রতিশ্রুতি দেন বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। করোনাভাইরাসের অতি সংক্রামক ডেল্টা ধরনের বিস্তার রোধ করতে হিমশিম খাওয়া এ বিশ্বনেতারা বলেছেন, তারা ‘পারস্পরিক সমঝোতার ভিত্তিতে’ ভ্যাকসিন উৎপাদন প্রযুক্তি অন্য দেশে স্থানান্তরে উৎসাহ দেবেন।“মহামারী আমাদের অঞ্চলের মানুষ ও অর্থনীতির ওপর ক্রমাগত ভয়াবহ প্রভাব ফেলে যাচ্ছে। যত বেশি সম্ভব মানুষকে নিরাপদ, কার্যকর, মানসম্পন্ন ও সাশ্রয়ী টিকা দেওয়ার মাধ্যমেই আমরা কেবল এই সংকট থেকে মুক্তি পেতে পারি,” বলেছেন তারা।কোভিড-১৯ মহামারী এবং অর্থনীতিতে এর প্রভাব নিয়ে আলোচনা করতেই শুক্রবার এপেক নেতাদের এই বিশেষ বৈঠক হয়।

নভেম্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে একত্রিত হওয়ার আগে জোট নেতারা শুক্রবার মহামারী নিয়ে এ বিশেষ ভার্চুয়াল বৈঠক করলেন। এর আগে কখনোই শীর্ষ সম্মেলনের আগে এ ধরনের বৈঠক দেখা যায়নি।“টিকা উৎপাদন, অন্যদের সঙ্গে ভাগ করে নেওয়া এবং টিকার ব্যবহার- এসবের মাধ্যমে কীভাবে বৈশ্বিক টিকাদান কর্মসূচিতে সহায়তা করবো, আমরা এখন তার দিকে নজর দিচ্ছি,” বৈঠকের পর এমনটাই বলেছেন নিউ জিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আডার্ন।এপেক নেতাদের এই বিশেষ বৈঠকে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ভ্যাকসিন উৎপাদন ও সরবরাহের ক্ষেত্রে থাকা বাধাগুলো দূর করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন।বৈঠকে ইন্দোনেশিয়ার কোভিড পরিস্থিতি এবং থাইল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ায় সংক্রমণের নতুন ঢেউসহ দেশে দেশে শনাক্ত রোগী বেড়ে যাওয়ার উদ্বেগজনক পরিস্থতি নিয়ে আলোচনা হয়।