জেলাশাসক অন্য পদে রাজ্যবাসীর জন্য কতটা নিরাপদ হবেন : আশিস

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, ৩ মে : জনগণ এবং সময়ের চাপে পড়ে অব্যাহত চেয়েছেন পশ্চিম জেলাশাসক শৈলেশ কুমার যাদব। তদন্ত চলাকালীন সময়ে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি চাওয়া দাবি নিয়ে সোমবার রবীন্দ্রপল্লী আবাসনে সাংবাদিক সম্মেলন করে এমনটি প্রশ্ন তুললেন স্বদলীয় বিধায়ক আশিস দাস।  তিনি বলেন, গত ২৬ এপ্রিল জেলাশাসক শহরের দুটি বিয়ে বাড়িতে সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে পুরোহিতের শারীরিক নিগ্রহের ঘটনাটি ঘটিয়েছে তা মধ্যযুগীয় বর্বরতাকে হার মানিয়ে দিয়েছে। দেশের অনেকেই জেলা শাসকের ভূমিকায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন। জেলাশাসকের এ ধরনের অভাবনীয় ঘটনার তীব্র প্রতিবাদে রাজ্যজুড়ে ধর্না শুরু হয়েছে। ১২ ঘণ্টার মধ্যে যাতে অত্যাচারী জেলা শাসকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়, তার জন্য মুখ্যমন্ত্রীর কাছে বিধায়কদের পক্ষ থেকে দাবি জানানো হয়েছিল।

কিন্তু জেলা শাসকের বিরুদ্ধে কোন ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। জেলাশাসক যদি নিজের ভুল বুঝতে পারতেন, তাহলে তিনি অন্যপদে দায়িত্বভার নিতে চাইতেন না। এর পেছনে একটা চক্রান্ত রয়েছে। তাই ধিক্কারের প্রবনতার জন্য অব্যাহতি চেয়েছেন জেলাশাসক। অর্থাৎ সাপ হয়ে বেড়লো, ওঝা হয়ে ঝাড়লো। সুতরাং সেদিনের ঘটনা ছিল একটা চক্রান্তমূলক ঘটনা। এমনটাই অভিযোগ তোলেন জেলা শাসকের বিরুদ্ধে বিধায়ক শ্রী দাস। আর এখন তিনি জেলাশাসক পদ থেকে অব্যাহতি চেয়ে অন্য পদে দায়িত্ব ভার সামাল দিতে চাইছেন। কিন্তু সেই পদে তিনি রাজ্যবাসীর জন্য কতটা নিরাপদ হবেন তা নিয়ে সরকারের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন তুলেন বিধায়ক। পাশাপাশি তিনি সরকারের ভূমিকা টেনে বলেন বাবার বিচার ছেলেকে দেওয়া হয়েছে। যা কখনো সঠিক বিচার সম্ভব নয়। অর্থাৎ দুই জুনিয়র আই এস অফিসারকে দিয়ে জেলাশাসক সুরেশ কুমার যাদবের তদন্তের ভার দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সঠিক তদন্তের প্রয়োজন ছিল। সেদিনের ঘটনায় সামাজিক এবং ঐতিহ্যের জন্য অন্যায় হয়েছে। সুতরাং অবিলম্বে সঠিক তদন্তের দাবি জানালেন তিনি।