চাকরিচ্যুতদের আন্দোলন করতে ব্যাঘাত পুলিশের

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, ৩ মে :  সোমবার রাজধানীর সার্কিট হাউস এলাকায় গান্ধী মূর্তির পাদদেশে দু'ঘণ্টার জন্য গন অবস্থানে বসার প্রস্তুতি নেয় জয়েন্ট মুভমেন্ট কমিটি ১০৩২৩। গন অবস্থানের মূল উদ্দেশ্য হল সুপ্রীম কোর্ট যে শেষ রায় দিয়েছে তা মেনে অতিস্বত্বর সরাসরি গ্রুপ সি এবং গ্রুপ ডি- পদে যাতে তাদের নিয়োগ করা হয়। 

 কিন্তু এই ক্ষেত্রে আরক্ষা দপ্তর থেকে তাদের কোন অনুমতি দেওয়া হয়নি। তারপরেও  ১০৩২৩ জয়েন্ট মুভমেন্ট কমিটির সদস্যরা সার্কিট হাউস এলাকায় সমবেত হয়। বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয় এলাকায়। সদরের অতিরিক্ত মহকুমা শাসক ও মহকুমা প্রশাসনের আধিকারিকেরা ছুটে যায়। তাদের স্পষ্ট বলে দেওয়া হয় কোভিড পরিস্থিতিতে মুখ্য সচিবের নির্দেশ রয়েছে কোন ধরনের জমায়েত করা যাবে না। তাই এই স্থানে কোন ধরনের জমায়েত ও গন অবস্থান করা যাবে না। কিন্তু জয়েন্ট মুভমেন্ট কমিটি ১০৩২৩ জানান তাঁরা সরকারের নির্দেশ মেনে চলে সহায়তা করবে। আগেও সরকারী নির্দেশ মেনে তাঁরা কর্মসূচি নিয়েছে , এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটবে না।

 এন সি সি থানা থেকে অনুমতি চাওয়া হলে তাঁরা প্রশাসনের কাছ থেকে অনুমতি আনতে বলে। রবিবার হওয়ায় তা সম্ভব হয়নি। একান্ত বসতে না দিলে পরবর্তী সিদ্ধান্ত আলোচনাক্রমে স্থির করা হবে বলে জানান জয়েন্ট মুভমেন্ট কমিটি ১০৩২৩-র নেতৃত্ব বিজয় কৃষ্ণ সাহা। তিনি আরো জানান নাগরিকের মৌলিক অধিকার খর্ব করা হচ্ছে। একজন বিধায়ক গত কিছু দিন ধরে এই স্থানে বসে গন অবস্থান সংগঠিত করতে পারলে তাদের কেন দেওয়া হবে না তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি। অন্যত্র গন অবস্থান করার অনুমতি দেওয়া হোক। কিন্তু তাও করা হয়নি। এখনো পর্যন্ত ৯৩ জন শিক্ষক- শিক্ষিকার মৃত্যু হয়েছে। তাই চাকুরি প্রদান অবিলম্বে করা হোক। তার দাবি জানান জয়েন্ট মুভমেন্ট কমিটি ১০৩২৩ -র অপর নেতৃত্ব কমল দেব। এন সি সি থানার এস ডি পি - প্রিয়া মাধবী মজুমদার জানান আদালত থেকে তাদের গনধর্না করার অনুমতি মিলেছে। কিন্তু কোভিড পরিস্থিতিতে মুখ্য সচিবের নির্দেশ থাকায় এই কর্মসূচি করার অনুমতি দেওয়া হবে না। তাই তাদের এই স্থান ছেড়ে যেতে বলা হয়েছে।  এদিকে পরে ফের রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে জয়েন্ট মুভমেন্ট কমিটি ১০,৩২৩। এই কর্মসূচী চলাকালীন সময়ে আসেন বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মণ। এ বিষয়ে চাকরিচ্যুত তাদের কাছ থেকে কিছুটা শুনে ফিরে যান বিধায়ক।