ক্ষমা চাইলেন সংসদ

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, ২৭ এপ্রিল : বিয়ে বাড়িতে  আইন ভাঙার ঘটনাকে কেন্দ্র করে পশ্চিম জেলার জেলা শাসকের উন্মাদনার সাক্ষী রইল গোটা রাজ্যবাসী। নাইট কারফিউ এবং ১৪৪ ধারা লংঘন করায় সোমবার রাতে পশ্চিম জেলার জেলাশাসক শৈলেশ কুমার যাদব মানিক্য কোট এবং গোলাপ বাগান দুটি বিয়ে বাড়িতে গিয়ে বিয়ে আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেওয়া বাঞ্ছনীয় ছিল।

কিন্তু বিয়ে বাড়িতে আসার সাধারণ মানুষের উপর জেলাশাসক শৈলেশ কুমার যাদব পুলিশকর্মী দিয়ে শারীরিক নিগ্রহ সহ গ্রেপ্তারের ঘটনা তীব্র নিন্দা জনক হয়ে পড়ে। বিষয়টি এখানেই থেমে থাকেনি মানুষকে খাবার পর্যন্ত খেতে দেয়নি ঐদিন জেলাশাসক। বিভিন্ন বাইক গাড়ি চালকদের চাবি পর্যন্ত ছিনিয়ে নেন তিনি। পশ্চিম থানার ও সি জয়ন্ত কর্মকারের বিরুদ্ধে বরখাস্তের নির্দেশ দেন জেলাশাসক। এমনটাই অভিযোগ পেয়ে মঙ্গলবার দুপুর নাগাদ পশ্চিম থানায় ছুটে যান সাংসদ প্রতিমা ভৌমিক। থানার ওসি সহ অন্যান্য কর্মীদের সাথে সোমবার রাতের ঘটনার বিষয়ে অবগত হন। পরে তিনি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন, সোমবার রাতের ঘটনা অপ্রত্যাশিত। এটা স্পর্শকাতর। প্রশাসনের নির্দেশিকা মেনে চলাটা সকলের কর্তব্য।

 পাশাপাশি এ ধরনের ঘটনায় তিনি সকলের কাছে ক্ষমা চাইলেন। এমনকি সোমবার রাতে বিয়ে বাড়িগুলির চিত্র সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তে মানুষের মধ্যে ক্ষোভের দানা বাঁধে। এ কোন ধরনের অরাজকতা জোট সরকারের আমলে। আইন ভাঙ্গলে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা যেতে পারে। কিন্তু সাধারণ মানুষকে মারধরের ঘটনা রাজ্যের ইতিহাসে বিরল বলে চলে। ফলে লজ্জায় মুখ ঢাকতে সাংসদকে যেতে হলো থানা পর্যন্ত। রাজনৈতিক মহলে দেখা দিয়েছে গুঞ্জন।