অস্ট্রেলিয়ানদের মলদ্বীপে পাঠিয়ে দিল সৌরভের বিসিসিআই

স্যন্দন ডিজিটাল ডেস্ক, ৬ মে : কোভিড  আক্রান্ত আইপিএল  অনির্দিষ্ট কালের জন্য এই মরসুমে স্থগিত হয়ে গিয়েছে। একে একে দেশে ফিরে যাচ্ছেন বিদেশের ক্রিকেটাররা। অধিকাংশই হয়ে ফিরে গিয়েছেন নয়, ফিরে যাওয়ার পথে। তবে আইপিএলের সঙ্গে যুক্ত অস্ট্রেলিয়ারদের দেশে ফেরা নিয়ে একটা সমস্যা রয়ছে।  কারণ সে দেশের সরকার করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে আগামী ১৫ মে পর্যন্ত ভারত-অস্ট্রেলিয়া বিমান চলাচল বন্ধ রেখেছে। ফলে স্মিথ-ওয়ার্নাররা চেয়েও দেশে ফিরতে পারছেন না। এই অবস্থায় অস্ট্রেলীয়দের ভারত থেকে মলদ্বীপে পাঠিয়ে দিল বিসিসিআই । এমনটাই জানিয়েছেন বোর্ড সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় । দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলছেন, “অস্ট্রেলিয়ানরা দেশে ফেরার আগে মলদ্বীপে থাকবে। ওদের কোনও চিন্তা করতে হবে না।

ওদের ওখানেও দেখভাল করা হবে। মলদ্বীপে কোয়ারেন্টিন কাটিয়ে অজিরা নিজের দেশে ফিরে যাবে। আশা করি এটা নিয়ে কোনও ইস্যু হবে।"করোনা আবহে ভারতের সঙ্গে শুধু বিমান যোগাযোগ বন্ধই রাখেনি অস্ট্রেলিয়া, সঙ্গে কোভিড বিধি আরও কড়া করেছে ক্যাঙারুর দেশ। এর আগে ভারত থেকে অস্ট্রেলীয় নাগরিকদের দ্রুত দেশে ফেরার নির্দেশ দিয়েছিল অজি সরকার। কিন্তু এবার দেশবাসীকে দেশে ফেরার রাস্তাটাই বন্ধ করে দিল তারা। সে দেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী গ্রেগ হান্ট জানিয়েছেন যে, গত ১৪ দিনের মধ্যে যাঁরা অস্ট্রেলিয়া থেকে ভারতে গিয়েছেন এবং এই সময় অস্ট্রেলিয়ায় ফেরার পরিকল্পনা করছেন, তাঁদের জন্য এই নিষেধাজ্ঞা জারি হবে। আর এই নিয়মের ব্যতিক্রম হবে না ভারতে আইপিএল খেলতে বা ধারাভাষ্য দিতে আসা নাগরিকদের। এই নির্দেশ অমান্য করলে ৫ বছরের জন্য হাজতবাস করতে হতে পারে, কিংবা ভরতে হতে পারে বেশ মোটা টাকার জরিমানা।

অন্যদিকে আইপিএল স্থগিত হওয়ার পরের দিনেই অর্থাৎ  বুধবার নিজেদের দেশে ফিরে এসেছেন ৮ ইংরেজ ক্রিকেটার। জনি বেয়ারস্টো, জস বাটলার, স্যাম বিলিংস, ক্রিস ওকস, মঈন আলি, জেসন রয়, স্যাম কারেন এবং টম কারেনরা আহমেদাবাদ থেকে হিথরোতে পৌঁছে গিয়েছেন। তাঁদের সকলকেই সেই দেশের সরকারের বেঁধে দেওয়া হোটেল ১০ দিন নিভৃতবাস কাটিয়েই নিজের ঘরে ফিরতে হবে। তবে এখনও ভারতে অইন মর্গ্যান, ক্রিস জর্ডন ও দাউইদ মালানের মতো বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার রয়ে গিয়েছেন। তাঁরা দিন দুয়েক পর ফিরবেন। অবশ্যই তাঁদেরকেও দেশে ফেরানোর ব্যবস্থা করবে বিসিসিআই।